আনোয়ারা (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি:
চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার ১নং বৈরাগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সোলায়মান সংবাদ সম্মেলন করে তার বিরুদ্ধে ইউএনও’ র নাম ভাঙ্গিয়ে প্রতারণার অভিযোগের ঘটনা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন। ইউপি নির্বাচন সামনে রেখে একটি পক্ষ তাকে ফাঁসাতে মিথ্যা ও কাল্পনিক তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

মঙ্গলবার বিকেলে বৈরাগ ইউনিয়ন পরিষদ সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ বক্তব্য তুলে ধরেন। এ সময় ইউনিয়ন পরিষদের সচিব, ইউপি সদস্যবৃন্দসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

মোহাম্মদ সোলায়মান লিখিত বক্তব্যে বলেন,নির্বাচনী এলাকায় আমার জনপ্রিয়তা দেখে একটি পক্ষ আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। তারা আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা-কাল্পনিক ও বানোয়াট তথ্য দিয়ে সাংবাদিকসহ বিভিন্ন মাধ্যমে অভিযোগ করেছেন। প্রকৃত ঘটনা হচ্ছে,বৈরাগ ইউনিয়নের গুয়াপঞ্চক গ্রামে সরকারি খাস জমিতে মুজিববর্ষ উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে গৃহ ও ভূমিহীনদের জন্য ৮০টি ঘর বরাদ্দ পাওয়া যায়। কিন্তু ওই স্থানে আগে থেকেই ২৬টি পরিবার বসবাস করে আসছিল। সেসব পরিবারকে নতুন করে পুনর্বাসন করার কথা জানিয়ে গত সোমবার ইউএনও শেখ জোবায়ের আহমেদ,এসি ল্যান্ড তানভীর হাসান চৌধুরী ও পিআইও জামিরুল ইসলাম এলাকা পরিদর্শন এবং উচ্ছেদ কার্যক্রম চালান। এ সময় আমিও সেখানে উপস্থিত ছিলাম। এই পরিস্থিতিকে কাজে লাগিয়ে একটি কুচক্রী মহল সাংবাদিকদের আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করেন। অভিযোগে যেসব সুবিধাভোগীর টাকা নিয়ে প্রতারণার কথা বলা হয়েছে,তারা মূলত সমিতির মাধ্যমে নিজেদের দেখভালোর জন্য এসব টাকা তুলে থাকেন। অথচ সাংবাদিকদের বলা হয়েছে গৃহহীনদের ঘর পাইয়ে দিতে ইউএনও মহোদয়ের জন্য আমি দুই লাখ টাকা নিয়েছি। এত টাকা তাদের গড়া সমিতিতেও জমা নেই। যার প্রমাণ হিসেবে ওই সব ব্যক্তিরা লিখিত প্রত্যয়নপত্রে স্বীকার করেছেন। কিন্তু আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে মিথ্যা তথ্য দিয়ে আমাকে সমাজে ও আমার নির্বাচনী এলাকায় হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে অভিযোগকারী মাওলানা নুরুল হক নিজেকে মসজিদের ইমাম পরিচয় দিয়ে বলেন,ইউপি চেয়ারম্যানের সঙ্গে আমার সম্পর্কে ফাটল সৃষ্টি করার জন্যে আমার নামে মিথ্যা বক্তব্য প্রকাশ করা হয়েছে। চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আমি কোনো বক্তব্য দিইনি।

জানতে চাইলে আনোয়ারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ জোবায়ের আহমেদ বলেন, চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে গৃহহীনদের ঘর পাইয়ে দিতে আমার নামে টাকা নেওয়ার অভিযোগ আমি পাইনি। এলাকা পরিদর্শনকালেও কেউ এ ধরনের অভিযোগ দেয়নি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •