মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু:
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির দুর্গম দোছড়িতে সড়ক দুর্ঘটনায় নারী শিশুসহ ৭ জন গুরুতর আহত হয়েছে ।
তারা হলেন দোছড়ি ইউনিয়নের লেমুছড়ি গ্রামের মাহাব্বুল আলমের স্ত্রী জাহেদা বেগম (৪০), ছেলে সিএনজি চালক আলা উদ্দীন (২১), মহিউদ্দিন (১১),বাদশা মিয়ার স্ত্রী খুরশিদা বেগম (৩৫)। একই ইউনিয়নের পাইন ছড়ি গ্রামের নুর হোসেনের স্ত্রী রাবিয়া বেগম ও তার ৮ বছরের শিশু কন্যা মরিয়ম বেগম। এছাড়াও ইউনিয়নের কুলাচি এলাকার থোয়াই চিং মার্মা (৬০) পিতা মৃত মংসিং হ্লা মার্মা।
প্রত্যক্ষদর্শীরা আহতদের প্রথমে নাইক্ষ্যংছড়ি সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন। সেখানে অবস্থার অবনতি দেখে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার দেয়। আশংকা জনক অবস্থায় জাহেদা, মহিউদ্দিন, খুরশিদা ও আলাউদ্দিনকে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। অপর তিন জন নাইক্ষ্যংছড়ি সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রবিবার (৩০ মে) বিকালে রামুর গর্জনিয়া বাজার হইতে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার দুর্গম দোছড়ি ইউনিয়নের নিজ বাড়ীতে যাওয়ার পথে লেমুছড়ি বড় উড়নি দিয়ে নামার পথে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে উল্টে গিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নাইক্ষ্যংছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ আলমগীর হোসনে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,জাহেদা বগমের ছেলে চালক আলাউদ্দিন মা, ভাই,ফুফুসহ তার আত্মীয়স্বজনদের নিয়ে গর্জনিয়া বাজার থেকে বিকালে বাড়ী ফেরার পথে লেমুছড়ি বড় উড়নি নামক স্থান দিয়ে নামার সময় খাদে পড়ে এ দুর্ঘটনার কবলে পড়ে।

এর পর পরই উদ্ধার করে হতাহতদের হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। তবে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত নিহতের খবর পাওয়া যায়নি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •