নিজস্ব প্রতিবেদক:
লামা উপজেলার ফাইতং ইউনিয়নে পাহাড়ের ঢালু থেকে মো. মুবিন নামে বাইক রাইডারের লাশ উদ্ধারের ছয়দিন পর হত্যার রহস্য উদ্ঘাটন করেছে র‌্যাব।

ওই হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে মো. আব্দুল্লাহ (১৬) নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। সে চকরিয়া উপজেলার হারবাং নোনাছড়ি গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে।

নিহত মুবিন চকরিয়া উপজেলার বরইতলী ইউনিয়নের মাইজপাড়া গ্রামের নুরুল আলমের ছেলে। তিনি পেশায় ভাড়ায়চালিত মোটরসাইকেল চালক ছিলেন।

বুধবার (২৬মে) দুপুরে র‌্যাব-১৫ কক্সবাজার ব্যাটালিয়ান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গত ১৮ মে রাতে বান্দরবানের লামা উপজেলার ফাইতং এলাকায় বিয়ের অনুষ্ঠানে যাওয়ার কথা বলে ভাড়ায়চালিত মোটরসাইকেলসহ মুবিনকে ডেকে আনে ওই কিশোরসহ তিনজন। পরে তারা মোটরসাইকেলটি নিয়ে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। এক পর্যায়ে তারা লামা উপজেলার ফাউতং ইউনিয়নের অলিকাটা এলাকায় পৌঁছালে কৌশলে মোটরসাইকেল চালককে থামায়। এ সময় অভিযুক্ত কিশোরসহ তিনজন মিলে চালক মুবিনকে ধারালো ছুরি দিয়ে হত্যা করে। পরে নিহতের মরদেহ স্থানীয় একটি লেবু বাগানে ফেলে রেখে মোটরসাইকেলটি ছিনতাই করে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনার চারদিন পর স্থানীয়দের খবরে পুলিশ অর্ধগলিত অবস্থায় মুবিনের মরদেহটি উদ্ধার করে। তবে কে বা কারা মুবিনকে হত্যা করেছে সে সম্পর্কে নিশ্চিত ছিল না পুলিশ।

পরে র‌্যাব নানাভাবে তদন্ত করে হত্যার কারণ এবং ঘটনায় জড়িতদের ব্যাপারে তথ্য পায়। এ তথ্যের ভিত্তিতে গতকাল মঙ্গলবার রাতে চট্টগ্রামের বাকলিয়া থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে এক কিশোরকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব।

এছাড়া ঘটনায় জড়িত মো. কায়সার ও আব্দুর রহিম নামের আরও দুই যুবককে গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানায় র‌্যাব।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •