রামু প্রতিনিধি:
‘শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দীর্ঘসময় বন্ধ থাকা, অভিভাবকদের অসচেতনতা সহ নানা কারনে করোনা পরিস্থিতিতে সর্বত্র বাল্যবিবাহ বৃদ্ধি পেয়েছে। বাল্যবিবাহ নিরসনে নারীদের শিক্ষার সুযোগ এবং তাদের অর্থনৈতিক সক্ষমতা নিশ্চিত করতে হবে। পাশাপাশি অভিভাবকদের সচেতনতা বৃদ্ধি করতে বিভিন্ন ধরণের সচেতনতামূলক পদক্ষেপ নিতে হবে’।
রামুতে জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে করোনাকালীন সময়ে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ বিষয়ক আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। মঙ্গলবার (২৫ মে) সকালে রামু সরকারি কলেজ সংলগ্ন জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থার কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন- রামু সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) আবদুল হক।
সভায় জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থার চারজন তরুণ নারী স্বেচ্ছাসেবী করোনাকালীন সময়ে বাল্যবিবাহের সার্বিক পরিস্থিতি তুলে ধরেন। তারা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দীর্ঘ দিন বন্ধ থাকায় বাল্যবিবাহ আরে বৃদ্ধির আশংকা প্রকাশ করেন এবং এই বিষয়ে আমন্ত্রিত অতিথিদের মূল্যবান মতামত গ্রহণ করেন। এসব তরুণ নারী স্বেচ্ছাসেবীরা বিগত কয়েক বছর ধরে জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থার (জেনাস) সাথে নারী উন্নয়নের বিভিন্ন কার্যক্রমে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করে যাচ্ছেন।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, রামু উপজেলা পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান ইউনূস রানা চৌধুরী, রামু প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি নুরুল ইসলাম সেলিম, কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার ডা. নেবু রানী শর্মা, ফতেখারকুল ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আবুল বশর, শিক্ষিকা নিরুপমা বড়–য়া, সাংবাদিক সোয়েব সাঈদ প্রমূখ।
সামাজিক দূরত্ব এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে অতিথি ও অংশগ্রহনকারিরা করোনা পরিস্থিতিতে বাল্যবিবাহ নিরসনে একযোগে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। এতে জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থার কর্মকর্তাবৃন্দ এবং বিভিন্ন শ্রেণি পেশার নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •