যে যেমন !

প্রকাশ: ২৫ মে, ২০২১ ১০:৪৮ , আপডেট: ২৫ মে, ২০২১ ১০:৫১

পড়া যাবে: [rt_reading_time] মিনিটে


ফেসবুক কর্ণারঃ
চার নম্বর বাচ্চা পেটে নিয়ে দুরের উপজেলা (চকরিয়া ) হতে সদর হাসপাতালে আসতে আসতে পথেই ভাগ্যক্রমে বাচ্চার ডেলিভারি হয়ে গিয়েছে, জরুরী বিভাগের সামনে এসে হইচই, চেচামেচি, বাচ্চার নাড়ি কাটা, কর্ড ক্লাম্প করা ইত্যাদি সামলাতে সামলাতে চলছে মায়ের পরিচর্যা ও রয়ে যাওয়া গর্ভফুল (প্লাসেন্টা) বের করার প্রচেষ্টা যা সাধারণত আধা ঘন্টার মধ্যে আবশ্যিকভাবে বের করতে হয় !

এর মাঝে রোগীর স্বামীর তাড়া !” স্যার, অনেক দূর হতে আসছি, বাচ্চা তো খালাস হয়ে গেছে , তাড়াতাড়ি করেন, সি এন জি দাড়াইয়া রাখছি, বউ বাচ্চা বাসায় নিতে হবে ”

এদিকে রোগীর অনবরত রক্তক্ষরণ হচ্ছে, ডাক্তার ,নার্স ,স্টাফ সবাই ব্যতিব্যস্ত কিভাবে মাকে সেইভ করা যায় , বাচ্চাকে নিয়ে ব্যস্ত অন্য এক টিম , মায়ের পেটে তীব্র শ্বাসকষ্ট ও চাপে ছিল যার জন্য শরীরে মেখে আছে ওরই হাগুমুতু !

রাগ হজম করতেই হবে ! সহাস্যে করিব সেবাদান – এই আমার ব্রত !
# মোটর বাইক এক্সিডেন্ট করে দুই যুবকের স্পট ডেথ ! পথচারী ও পুলিশ মিলে লাশ দুটি নিয়ে আসে জরুরী বিভাগের রেড জোনে, পুলিশী ঝামেলা ও মর্গে লাশ পাঠানোর প্রক্রিয়া করতে করতে ডোমকে নির্দেশ দিচ্ছি লাশ মর্গে ফ্রিজে রাখার জন্য, কাগজপত্র থানায় ইনফর্ম করার জন্য রেডি করা অবস্থায় মফিজ মিয়া ( মর্গের কাজে সহায়তাকারী ) এসে বলে , ” স্যার ! ওই দুইটা কি করব !? ঝটপট উত্তর দিলাম, দ্রুত মর্গের ফ্রিজে রেখে দেন ” ব্যাচারা থ হয়ে রইল , মাত্র আসা এক্সিডেন্ট রোগীর খবর এখনো জানেনা সে ! হালকা ঝাড়ি দিয়ে বললাম, তাড়াতাড়ি করেন, ঝামেলা কমান ” মৃদু হেসে বেচারা রিপ্লাই দিল ” আপনার জন্য আমার গাছের দুইটি কাঁঠাল এনেছি স্যার “! গত কয়েকবছর মফিজ মিয়া তার গাছের অসাধারণ সুস্বাদু কাঁঠাল কেন যেন আমার জন্য বরাদ্দ রাখে , বিব্রত হই এবং ভাল ও লাগে !

ভালবাসার দান কিভাবে ফিরাই আমি !?
# কোভিড 19 এর রুগী, শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাজির, বয়সের ভারেও ন্যুব্জ এবং কাহিল , অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে চিকিৎসকের চেম্বার হতে জরুরী বিভাগে , অক্সিজেন লেভেল মাত্র 74 % ! এদিকে সীট খালি নেই কোথাও বলার পর , ” স্যার, মুক্তিযোদ্ধা কেবিনে দিয়ে দেন ,উনি একজন মুক্তিযোদ্ধা “!
কেবিনে কি এত্ত ক্রিটিক্যাল রোগীর সুচিকিৎসা সম্ভব !? আর অন্য মুক্তিযোদ্ধা থাকলে উনাকে কি ” ছুটি বা বাহির ” করে দেওয়া শোভনীয় হবে এই অবেলায় !?

কেন এখনো পর্যাপ্ত সুযোগ ও ব্যবস্থা গড়ে উঠেনি মুক্তিযুদ্ধের এত বছর পরও সবার জন্য না হোক – অন্তত বীর সেনানীদের জন্য !?

দেশের জন্য আমি কি করছি আমার সাধ্যের মধ্যে !?
# পায়ে সাপে কামড়ের পর চুনের প্রলেপ , রশির বাঁধন দিয়ে হাজির পঞ্চাশোর্ধ্ব প্রবীণ , যথেষ্ট সজাগ ও সচেতন রোগীক জিজ্ঞেস করলাম ” চাচা, ধরুন ,দুর্ঘটনাবশত সাপ আপনার কপালে , মুখে বা মাথায় কামড় দিল তখন এই টাইট বাঁধন কোথায় দিবেন !?”

টিভি , সিনেমা , পাঠ্যক্রম বা কোন ভাবেই কি পেরেছি আমরা এসব অপ চিকিৎসা ও কুসংস্কার হতে নিজেদের বিরত রাখতে !?

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. আশিকুর রহমান-এর টাইম লাইন থেকে।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •