প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রিয় ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক এডঃ সিরাজুল মোস্তফা বলেছেন, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ থাকলে যেকোন ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করা সম্ভব। আঘাত আসলে তা আইনশৃংখলা বাহিনীকে সহযোগিতার মাধ্যমে যথাযথ জবাব দিতে হবে।

তিনি বলেন, বড় মহেশখালীতে হেফাজত, বিএনপি ও জামায়াত যে তান্ডব চালিয়েছে এতে যারা জড়িত সবাইকে আইনের আওতায় আনতে হবে। কৌশলে যাতে কেউ রেহাই না পায় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা প্রস্তুত ছিল না বলে এই নেক্কারজনক হামলা করতে পেরেছে সন্ত্রাসীরা।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টায় বিএনপি, জামায়াত ও হেফাজতের সন্ত্রাসের প্রতিবাদে বড় মহেশখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিশেষ বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এডঃ সিরাজুল মোস্তফা এসব কথা বলেন।

বঙ্গবন্ধু মহিলা কলেজের অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত এই সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্যে আশেক উল্লাহ রফিক এমপি বলেন, আওয়ামী লীগের রাজনীতি সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে। দীর্ঘদিন রাষ্ট ক্ষমতায় আওয়ামী লীগ থাকলেও কেউ প্রতিহিংসার শিকার হয়নি। বিগত ৪ দলীয় জোট সরকারের সময়ে আওয়ামী লীগকে ঘরছাড়া করলেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার এসব প্রতিহিসার রাজনীতিকে পশ্রয় দেয় না। তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেন, সন্ত্রাসবাদের রাজনীতি বিএনপি, জামায়াত ও হেফাজত পরিহার না করলে তাদের রাজনৈতিকভাবে কঠোর জবাব দেওয়া হবে। আগামীতে নৈরাজ্যবাদী কাউকে ছাড় দেওয়া হবেনা।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজ মিয়া বাঁশির সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নুরুল আমিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি’র বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার পাশা চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি এম আজিজুর রহমান ও মহেশখালীর পৌর মেয়র মকছুদ মিয়া।

বক্তব্য রাখেন- মহেশাখালী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শরীফ বাদশা, উপজেলা সহসভাপতি মোঃ ফোরকান বিএ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডঃ আবু তালেব, আকতার কামাল মেজর, উপজেলা কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল হক, উপজেলা শ্রম বিষয়ক সম্পাদক মোস্তফা আনোয়ার চৌধুরী, উপদপ্তর সম্পাদক এহছানুল করিম, মোস্তাক আহমদ তালুকদার, এডঃ শরিফ উদ্দিন টিপু, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক সাজেদুল করিম, এনামুল করিম ও উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি আবদু শুক্কুর। এসময় ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক উপস্থিত ছিলেন।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •