সিবিএন ডেস্ক:
গাজায় গত নয় দিনের অব্যাহত বিমান হামলার কারণে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস কয়েক বছর পিছিয়ে গেছে বলে দাবি করেছেন ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। তিনি দাবি করেন, ইসরায়েলি হামলায় হামাসের অপ্রত্যাশিত ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

গাজা উপত্যকায় বোমা হামলা অব্যাহত রেখেছে ইসরায়েল। পশ্চিম তীরে রামাল্লাহর কাছে ইসরায়েলি পুলিশের গুলিবর্ষণে তিনি ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছে। সহিংসতা অবসানে কূটনৈতিক উদ্যোগের সফলতা খুবই সামান্য। অস্ত্রবিরতির আহ্বান জানিয়ে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে মিসর ও জর্ডানকে সঙ্গে নিয়ে নতুন একটি খসড়া প্রস্তাব উত্থাপন করেছে ফ্রান্স।

মঙ্গলবার খুব সামান্য সময়ের জন্য গাজার সীমান্ত ক্রসিং খুলে দিয়ে ত্রাণ বহনকারী গাড়িবহর প্রবেশের অনুমতি দেয় ইসরায়েল। তবে নতুন করে গোলাবর্ষণ শুরু হওয়ার পর আবারও ওই ক্রসিং বন্ধ করে দেওয়া হয়।

ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু বলেছেন, ইসরায়েলের সব নাগরিকের জন্য শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠিত হওয়ার আগ পর্যন্ত গাজায় সামরিক অভিযান অব্যাহত থাকবে। গাজায় ইসরায়েলি অভিযানে এখন পর্যন্ত ২১৫ জন নিহত হয়েছে। এর মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে প্রায় একশ’। আর অন্যদিকে ইসরায়েলে দুই শিশুসহ ১২ জন নিহত হয়েছে।

মঙ্গলবার ইসরায়েল বলেছে, গাজায় নিহতদের মধ্যে অন্তত ১৫০ জন সশস্ত্র যোদ্ধা রয়েছে। তবে হামাসের তরফ থেকে কোনও হতাহতের কোনও সংখ্যা প্রকাশ করা হয়নি। ইসরায়েলের দাবি সংঘাতের শুরুতে ফিলিস্তিনের দুই স্বাধীনতাকামী গ্রুপের কাছে প্রায় ১২ হাজার রকেট কিংবা মর্টার ছিলো। মঙ্গলবার পর্যন্ত ইসরায়েল লক্ষ্য করে প্রায় তিন হাজার তিনশ’ রকেট নিক্ষেপ করা হয়েছে। এর মধ্যে ৪৫০ থেকে পাঁচশ’টি গাজার অভ্যন্তরেই বিস্ফোরিত হয়েছে।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •