সিবিএন ডেস্ক:

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে পুরুষ ১৪ জন এবং নারী ১৬ জন। মৃতদের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৮ জন, বেসরকারি হাসপাতালে ১০ জন এবং বাসায় দুজন মারা যান। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১২ হাজার ২১১ জনে।

একই সময়ে নতুন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১ হাজার ২৭২ জন। এ নিয়ে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে সাত লাখ ৮২ হাজার ১২৯ জন।

মঙ্গলবার (১৮ মে) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত পরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় সরকারি ও বেসরকারি ৪৬৬টি ল্যাবরেটরিতে ১৭ হাজার ৬৭৫টি নমুনা সংগ্রহ ও ১৬ হাজার ৮৫৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দাঁড়াল ৫৭ লাখ ৩৪ হাজার ৯১৮টি।

২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার ৭ দশমিক ৫৫ শতাংশ। গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম রোগী শনাক্ত হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬৪ শতাংশ।

এদিকে একদিনে করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১ হাজার ১১৫ জন। এ নিয়ে দেশে আক্রান্ত হওয়ার পর চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীর সংখ্যা ৭ লাখ ২৪ হাজার ২০৯ জন। একদিনে সুস্থতার হার ৯২ দশমিক ৫৯ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত ৩০ জনের মধ্যে ত্রিশোর্ধ্ব একজন, চল্লিশোর্ধ্ব ৬ জন, পঞ্চাশোর্ধ্ব ৭ জন এবং ষাটোর্র্ধ্ব ১৬ জন রয়েছেন। বিভাগওয়ারি হিসাবে মৃতদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ১৫ জন, চট্টগ্রামে ৮ জন, রাজশাহীতে দুইজন, সিলেট দুইজন, রংপুর একজন এবং ময়মনসিংহ বিভাগে দুইজনের মৃত্যু হয়।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম রোগী শনাক্ত হয়েছিল গত বছরের ৮ মার্চ। প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর একই বছরের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যু হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •