নুরুল আমিন হেলালী, ঘুমধুম থেকে ফিরে
দক্ষ জনশক্তি তৈরী করবে সীমান্ত কলেজ ঘুমধুম। আর মানব সম্পদ তৈরিতে প্রযুক্তি সমৃদ্ধ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিকল্প নেই। মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিতের মাধ্যমে দক্ষ জনশক্তি তৈরী করাই আমাদের লক্ষ্য। প্রয়োজনে সর্বোচ্চ সম্মানি দিয়ে নিয়োগ করা হবে সেরা ও বাছাইকৃত শিক্ষক।

রবিবার (১৬মে) পার্বত্যজেলা বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম উচ্চ বিদ্যালয় মিলনায়তনে ঈদ পুনর্মিলনী ও সুধি সমাবেশ প্রধান অতিথির বক্তব্যে কলেজের উদ্যোক্তা ও নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. শফি উল্লাহ এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমাদের উদ্দেশ্য গতানুগতিক কলেজ প্রতিষ্ঠান করা নয়।
আপনাদের সকলের সহযোগিতা পেলে সীমান্ত এলাকার এই কলেজ হবে দেশের অন্যতম বিদ্যাপীঠ।

অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. শফি উল্লাহ বলেন, ক্যামব্রিজ কিংবা অক্সফোর্ডের মতো আন্তর্জাতিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে পিএইচডিধারীদের খন্ডকালিন শিক্ষক হিসেবে নিয়োগের ব্যবস্থা করা হবে। যাতে শিক্ষার্থীরা নতুন দিগন্তের স্বপ্ন দেখবে।

সভায় মতামত ব্যক্ত করে বক্তব্য রাখেন- উপজেল আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইমরান মেম্বার, নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল আবচার ইমন, বান্দরবান জেলা পরিষদ সদস্য ক্যনওয়ান চাক, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য অধ্যাপক রওশন আরা, অধ্যক্ষ ফরিদুল আলম, অধ্যাপক সিরাজুল হক, কক্সবাজার নিউজ ডটকম (সিবিএন) এর বার্তা সম্পাদক ইমাম খাইর, পালংখালী ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান নুরুল আবছার, হেলাল উদ্দিন মেম্বার।

এছাড়া সভায় এলাকার বিদ্যোৎসাহী ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত থেকে তাদের মতামত ব্যক্ত করেন।

বক্তারা সীমান্ত এলাকা ঘুমধুমে কলেজ প্রতিষ্ঠায় নিজ নিজ অবস্থান থেকে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন এবং সীমান্ত এলাকা ঘুমধুমে একটি মানসম্মত কলেজ প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বারোপ করেন।

কলেজের উদ্যোক্তা উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক শফি উল্লাহ কলেজের অবকাঠামোর জন্য ৫ একর জমি নিজ থেকে দান করার ঘোষনা দেন এবং এলাকার ধনাঢ্য ব্যক্তিদের যার যার অবস্থান থেকে এগিয়ে আসার আহবান জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •