মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজারের পুলিশ সুপার মোঃ হাসানুজ্জামান পিপিএম কক্সবাজার জেলাবাসী, কক্সবাজার জেলা পুলিশের সকল সদস্য সহ সংশ্লিষ্ট সকলকে ঈদ শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। শুভেচ্ছায় তিনি বলেন- ঈদুল ফিতর সব শ্রেণীর মানুষের মাঝে গড়ে তোলে সম্প্রীতি, সৌহার্দ্য ও ঐক্যের বন্ধন। ঈদে সাম্য, মৈত্রী ও ভ্রাতৃত্বের মহিমান্বিত আহবানে শান্তি-সুধায় প্রতিটি মানুষের হৃদয় ভরে উঠুক।

শুভেচ্ছা বার্তায় তিনি আরো বলেন, বৈশ্বিক মহামারী করোনা সংকটের মাঝেই সিয়াম সাধনায় অর্জিত পরিশুদ্ধতায় এসেছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। চলমান করোনাযুদ্ধে ফ্রন্ট লাইনে থেকে জীবনের চরম ঝুঁকি উপেক্ষা করে নিরন্তর সেবা প্রদান করছেন বাংলাদেশ পুলিশের সদস্যরা। এ কারণে ভয়ংকর করোনা যুদ্ধে অনেক ঘাত-প্রতিঘাত সবার আগে পুলিশ সদস্যদের মোকাবিলা করতে হচ্ছে। তবুও একবিন্দু দমে না গিয়ে শক্ত মনোবল আর পূর্ণ উদ্যমে এগিয়ে চলছে পুরো বাংলাদেশের ন্যায় কক্সবাজার জেলা পুলিশের সকল সদস্য। এ অবস্থায় সবাইকে সামাজিক ও শারীরিক দুরত্ব বজায় রেখে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদুল ফিতর উদযাপনের জন্য তিনি সকলের প্রতি অনুরোধ জানান। ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করতে গিয়ে যেন স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়টি কেউ ভুলে না যাই, সেদিকে সকলকে খেয়াল রাখার আহবান জানান-এসপি মোঃ হাসানুজ্জামান পিপিএম।

শুভেচ্ছা বার্তায় জেলা পুলিশের কর্ণধার এসপি মো: হাসানুজ্জামান পিপিএম আরো বলেন, সামাজিক দুরত্বে সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্যের মেল বন্ধনে নিশ্চিত হউক আগামীর নিরাপত্তা। তিনি কক্সবাজারবাসীর অব্যাহত শান্তি, অগ্রগতি ও সমৃদ্ধি কামনা করেন। সবাইকে ঈদ মোবারক জানিয়ে পবিত্র ঈদুল ফিতর মহামারীমুক্ত সুন্দর একটি পৃথিবী নিয়ে আসুক সেই কামনা করেন-এসপি মো: হাসানুজ্জামান পিপিএম।

কক্সবাজার জেলা পুলিশের নিজস্ব ফেসবুক আইডি’তে বৃহস্পতিবার ১৩ মে রাতে এসপি মোঃ হাসানুজ্জামান পিপিএম একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। নিন্মে স্ট্যাটাসাটি তুলে ধরা হলো : “ত্যাগ ও ভালোবাসার মহিমায় উদ্ভাসিত এবং শান্তি, সৌহার্দ্য আর আনন্দের বার্তাবাহক ঈদ সকল দুঃখ, জরা, হিংসা-বিদ্বেষ, বৈষম্য – বিভাজন দূর করে সর্বজনীন সম্প্রীতিতে পরিপূর্ণ করুক আমাদের হৃদয়ানুভূতি।”

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •