মোজাম্মেল হক, গোয়ালন্দ :
গনপরিবহন চলাচলে বিধি নিষেধ থাকা সত্তে ও ঈদ উদযাপন উপলক্ষে প্রিয়জনদের সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি মাথায় নিয়ে নানা ঝক্কি  ঝামেলা পেরিয়ে নাড়ির টানে বাড়ি ফিরছে হাজারো মানুষ।

বুধবার (১২ মে) সকালে থেকে দুপুর পর্যন্ত দৌলতদিয়া ফেরি ঘাট এবং টার্মিনাল এলাকা সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, বেলা বাড়ার সাথে সাথে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের দৌলতদিয়া ফেরি ঘাট ও টার্মিনাল এলাকায় ঢাকা ফেরত হাজারো মানুষের ভীড়। গণপরিবহন বন্ধ থাকায় ঢাকা ও এর আশপাশের জেলা শহরগুলো থেকে খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষ প্রখর রোদে রোজা রেখে নারী ও শিশুদের নিয়ে চরম দূর্ভোগের মধ্যেও জেলার অভ্যন্তরে , ট্রাক, পিকআপ ভ্যান, মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকার ও মটরসাইকেলেসহ বিভিন্ন যানবাহনে গাদাগাদি করে গন্তব্যস্থলের দিকে ছুটছেন। এতে চরম দূর্ভোগ পোহাতে হলেও যে যেভাবে পারছে ছুটে চলেছেন।

সরকার ঘোষিত লকডাউনের নিষেধাজ্ঞা ও করোনা মহামারিকে লালকার্ড দেখিয়ে বাড়ি ফেরার জন্য এক অঘোষিত প্রতিযোগিতা চলছে। মানুষের বাড়ি ফেরার এই আবেগকে পুঁজি করে বিভিন্ন যানবাহনের চালক ও ঘাটের গাড়ির দালালেরা অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে। তিন চার গুন বেশী ভাড়া আদায় করলেও যাত্রীদের কোনমতেই থামানো যাচ্ছেনা।

এসময় ঢাকা থেকে আগত ছাইদ খান জানান, গনপরিবহন না থাকায় পথে পথে গাড়ি পরিবতন কের ফেরিতে গাদাগাদি করে করোনার ঝুঁকি নিয়ে চরম ভোগান্তি উপেক্ষা করে দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটে এসে পৌঁছাই। এখান থেকে জনপ্রতি ৩’শ টাকা ভাড়া মিটিয়ে মাহিন্দ্রতে উঠেছি মাগুরায় গ্রামের বাড়ি যাব বলে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •