এতদ্বারা সর্বসাধারণের জন্য আইনগত নোটিশ প্রচার যাচ্ছে যে, নিম্ন তপশীলোক্ত জমি প্রকৃত মালিক থেকে আম-মোক্তারনামা মূলে আমার মক্কেল ওবাইদুল হোছাইন মালিকানা প্রাপ্ত হয়ে তথায় ৩৪টি দোকানগৃহ নির্মাণ করিয়া সম্মুখভাগে ১৮টি দোকান শুটকি মাছ ও অন্যান্য ব্যবসা উপলক্ষে ভাড়া দেয়া হয়েছে। সম্প্রতি চিহ্নিত সন্ত্রাসী, ইয়াবা ব্যবসায়ী, চাঁদাবাজ ও ভূমিদস্যু মহেশখালী আতাউল্লাহ গং কক্সবাজার শহরের চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের মাধ্যমে উক্ত জমি ও দোকানগৃহ জবর দখলে নিয়েছে। যাহা কক্সবাজারের সর্বসাধারণ জ্ঞাত আছেন। উক্ত জমির বিষয়ে বিজ্ঞ যুগ্ম জেলা জজ ১ম আদালতে অপর- ৪৯৯/১৯ইং নং মামলা বিচারাধীন আছে। উক্ত মামলায় আতাউল্লাহ গংদের বিরুদ্ধে বেঁচা-বিক্রি, হস্তান্তর সংক্রান্তে নিষেধাজ্ঞা প্রচার আছে। এছাড়া অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট কক্সবাজার আদালতে এম.আর- ৪৪২/২১ইং নং মামলা বিচারাধীন আছে। উক্ত মামলাও ২য়পক্ষ আতাউল্লাহ গংকে নিম্ন তপশীলোক্ত জমিতে প্রবেশে বারিত আদেশ প্রচার আছে। এছাড়া আতাউল্লাহ গংদের বিরুদ্ধে জাল-জালিয়াতি সংক্রান্তে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট সদর আদালতে সি.আর- ৮৪০/১৯ইং নং মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারী আছে। এমতাবস্থায় আতাউল্লাহ গং কিংবা অন্যান্য প্রভাবশালী কক্সবাজারের চিহ্নিত ভূমিদস্যু আমাদের নির্মাণাধীন দোকানগৃহ ভাড়া দিতে চাইলে আপনারা ভাড়া নিবেন না এবং নিম্ন তপশীলোক্ত জমি বেঁচা-বিক্রি কিংবা হস্তান্তর করতে চাইলে কেউ ক্রয় করিবেন না। ভাড়া কিংবা ক্রয় করিলে এই নোটিশ প্রাপ্তি পর আমি নিম্ন স্বাক্ষরকারী দায়-দায়িত্ব বহন করিব না। সকলের জ্ঞাতার্থে এই আইনগত বিজ্ঞপ্তি প্রচার করা হইল।
তপশীল ঃ-
মৌজা- ঝিলংজা। আর.এস. খতিয়ান নং- ১২২৪/২০৪, আর.এস. দাগ নং- ৫৪৬/৯১১০, ৫৪৬/৯১১১, সৃজিত বি.এস. খতিয়ান নং- ২০০৩, বি.এস. দাগ নং- ২০০০৩ এর আন্দরে মোট ১.১০ একর জমি ও তৎ স্থিত ৩৪টি দোকানগৃহ।
নিবেদক
ওবাইদুল হোছাইন এর পক্ষে-এডভোকেট মোহাম্মদ আমিন জেলা ও দায়রা জজ আদালত, কক্সবাজার।
মোবাইল ঃ ০১৮১৭-৫৭২০৪৪

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •