বাঁশখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে বারবার সতর্ক করা সত্বেও শঙ্খ নদীতে বর্জ্য পদার্থ ফেলে শঙ্খ নদী সহ আশেপাশের পরিবেশ বিপন্ন করে তুলেছিলেন পুকুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসহাব উদ্দিন। তার মালিকানাধীন মেসার্স ঝিনুক পোল্ট্রি এন্ড নবায়ন প্রকল্প ও মেসার্স ঝিনুক পোল্ট্রি-২ ফার্ম থেকে বিষাক্ত বর্জ্য ফেলার দায়ে নয় লাখ টাকা জরিমানা করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম অঞ্চল।

জানা যায়, পুকুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসহাব উদ্দিনের মালিকানাধীন পোল্ট্রি খামারের বর্জ্য শঙ্খ নদীতে ফেলার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। সচেতন মহলে দাবি ওঠে তার পোল্ট্রি ফার্ম দুটি বন্ধের। এছাড়া তার খামারের বর্জ্যের গন্ধে আশেপাশের পরিবেশ দূষণ করার কারণে বেশ কয়েকবার মানববন্ধন করে এলাকাবাসী। অবশেষে পরিবেশের ক্ষতিসাধন করায় বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষণ আইন-১৯৯৫ এর ৭ ধারায় এ দুটি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হলো।

পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম অঞ্চলের পরিচালক মফিদুল আলম বলেন, পোল্ট্রি ফার্মের বর্জ্য শঙ্খ নদীতে ফেলায় এ দুটি প্রতিষ্ঠানকে নয়লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানা আনাদায়ে এ দুটি পোল্ট্রি ফার্মের মালিকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করবে পরিবেশ অধিদপ্তর।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •