আলমগীর মানিক, রাঙামাটি
রাঙামাটিতে জমি দখল কেন্দ্র করে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে পিতা পুত্রের সংবাদ সম্মেলন। শনিবার( ৮মে ২০২১) বিকালে শহরের কালিন্দিপুর রোড সংলগ্ন এলাকা জেলা পরিষদের অধীনেস্থ বাজার ফান্ডের নিচ তলায় রাঙামাটি রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
ভূমি সংক্রান্ত বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে আবদুর রহমান ও তার পিতা আবদুল আবদুল হক বলেন, উত্তর কালিন্দিপুর ৮নং ওয়ার্ড রাজবাড়ি স’মিল এলাকায় আমার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান ও ক্রয়কৃত জমি গত শুক্রবার সকালে আনুমানিক ৩০-৪০ জন ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী এনে জবর দখল করে দোকানঘর নির্মাণ করেন মোঃ সামসুল হক,জহিরও খোরশেদ আলমগং। আমার পিতা বাঁধা দিতে গেলে আমার পিতাকে ধারালো দা,কুড়াল ও লাঠি সোটা নিয়ে মারধর করে প্রতিপক্ষের লোকজন।
আবদুর রহমান তার লিখিত বক্তব্যে আরো বলেন,আমার ক্রয়কৃত জমিতে আমি দোকানঘর নির্মাণের প্রস্তুতি নিচ্ছি এমন সময় প্রতিপক্ষ সামছুল হক,খোরশেদ আলম,জহির,মোকারম,স্বপনও শাহ নেওয়াজসহ ক্ষমতাসীন দলের লোকজন নিয়ে এসে আমার জমিতে জোরপূর্বক দোকান ঘর নির্মাণ করে যা আইনত পরিপন্থী। এ জমি আমি পংকজ দেওয়ানের কাছ থেকে ক্রয় করেছি। জমি নিয়ে পংকজ দেওয়ানের স্ত্রী দিশা ত্রিপুরার সাথে আদালতে মামলা চললে। আদালতের নিষেধাঞ্জা থাকার পরও সন্ত্রাসী ষ্টাইলে ক্ষমতাসীন দলের ভাড়াটি লোকজন এনে ১ঘন্টার মধ্যে দোকান নির্মাণ করে সামসুল হকগংরা। এব্যাপারে আমি কোতয়ালী থানায় লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পরও পুলিশ কার্যকরি কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। বর্তমানে আমরা বাপ ছেলে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে ক্ষমতাসীন দলের লোকজন দিয়ে দফায় দফায় জীবননাশের হুমকি দিচ্ছে তারা আমাদেরকে। আমার দোকানপাট ভেঙ্গে ফেলে দিয়েছে প্রতিপক্ষ এতে করে প্রায় দেড়লক্ষ টাকার মালামালা ক্ষতি হয়েছে।
এব্যাপারে কোতয়ালী থানার এসআই ওসমান গণি বলেন, রাজবাড়ি এলাকায় জমি জবর দখল হচ্ছে এমন খবর পেয়ে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে আমি ঘটনাস্থলে যাই। আশ পাশের লোকজনের কাছ থেকে খবরা খবর নিয়ে দেখি আসলেই জবর দখল হচ্ছে। তখন আমি উভয়কেই কাজ না করার জন্য বলি। অপর দিকে যেহেতু জমির উপর আদালতের নিষেধাঞ্জা রয়েছে তাই কাজ বন্ধ রাখতে হবে। আমি এ বিষয় উভয় পক্ষের সাথে কথা বলেছি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •