মাহাবুবুর রহমান:
করোনায় শুধু মানুষ নয় প্রাণীকুলও পড়েছে চরম খাদ্য সংকটে। বিশেষ করে কক্সবাজারের পর্যটন শিল্পের সাথে জড়িত ঘোড়া গুলো পড়েছে চরম খাদ্য সংকটে। কারন তাদের মালিক এখন আর আয় করতে পারেনা তাই ইচ্ছা থাকলেও ঘোড়া গুলোকে নিয়মিত খাবার দিতে পারছেনা ঘোড়া মালিকরা। আর এই মানবিক কাজে সহায়তার হাত বাড়িয়ে এগিয়ে এলেন সরকারের প্রাণী সম্পদ বিভাগ।
৯ মে বেলা সাড়ে ১২ টায় কক্সবাজার উপজেলা প্রশাসন ও কক্সবাজার সদর উপজেলা প্রাণী সম্পদ দপ্তরের আওতায় শহরের ১৮ জন ঘোড়া মালিকের ৭০ টি ঘোড়ার জন্য ২০০ বস্তা খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়। এই মহতী কাজে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা চেয়ারম্যান কায়সারুল হক জুয়েল।
বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন- সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুরাইয়া আক্তার সুইটি, সদর উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ অসীম বরণ সেন,উপ সহকারী প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা মেজবাহ উদ্দিন কুতুবী।
এ সময় সদর উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা বলেন,বাংলাদেশের পর্যটনের প্রাণ কেন্দ্র হচ্ছে কক্সবাজার। আর কক্সবাজারের পর্যটনের অন্যতম আকর্ষনীয় উপকরণ হচ্ছে ঘোড়া। বর্তমানে করোনা সংকটে বন্ধ হয়ে গেছে পর্যটন কেন্দ্র, তাই ঘোড়ার মালিকরা আয় করতে না পারায় ঘোড়া গুলি অভুক্ত থাকছে। তারা বিভিন্ন স্থানে গিয়ে খাদ্যের জন্য ছটফট করছে। তাই আমরা মানবিক বিবেচনায় ঘোড়া গুলোর জন্য কিছুটা একটা করার প্রয়াস থেকে এই উদ্দ্যেগ।
উপজেলা চেয়ারম্যান কায়সারুল হক জুয়েল বলেন, করোনাময় পৃথীবিতে মানুষ সহ সকল প্রাণীকূলকে বেঁেচ থাকার জন্য ঐক্যবদ্ধ ভাবে সবাইকে কাজ করতে হবে। শুধু মানুষ নয় আমাদের চারপাশে অসংখ্য প্রাণী আছে যারা ক্ষুদার কথা বলতে পারছেনা হয়তো তাদেরও ক্ষুদা পায় সেটা আমাদের বিবেচনায় আনতে হবে। এদিকে ঘোড়ার জন্য খাদ্য সহায়তা পেয়ে দারুন খুশি ঘোড়ার মালিকরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •