সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:
চট্টলা ইঞ্জিনিয়ার্স ক্লাব (সিইসি)এর ‘ফ্রিল্যান্সিং’ বিষয়ক অনলাইন সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।
৭ মে বিকালে ক্লাবের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী আতিক সুজনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ভার্চুয়াল সেমিনারে স্পীকার ছিলেন চট্টগ্রামের স্বনামধন্য কম্পিউটার লার্নিং প্রতিষ্ঠান IT Career Solution এর সিইও নজরুল ইসলাম।
তার উপস্থাপনায় ফ্রিল্যান্সিং কি?,আউটসোর্সিং কি?,ফ্রিল্যান্সিং এবং আউটসোর্সিং পার্থক্য কি?,কোন কোন কাজ গুলো দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং করা যায়?,কেন ফ্রিল্যান্সিং করবেন বা ফ্রিল্যান্সার হবেন?,ফ্রিল্যান্সিং চাহিদা ও ভবিষ্যৎ কেমন?,কারা ফ্রিল্যান্সিং করতে পারবে বা কাদের জন্য এই ফ্রিল্যান্সিং পেশা?,কি যোগ্যতা লাগবে ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য?,কখন থেকে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো,কোন বিষয় নিয়ে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করবো?,কত সময় লাগে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে? বা আর্নিং লেভেল স্কিল করতে?,কত দিন লাগে আর্নিং শুরু করা যায়?,কোথায় থেকে ফ্রিল্যান্সিং শিখবো?,আসলে ফ্রিল্যান্সিং করে আর্নিং কি সম্ভব?,টাকা কিভাবে পাবো?,কোথায় কাজ পাব, ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস পরিচিতি।, ফ্রিল্যান্সিং ভাগ্য বদলে দিয়েছে। সুবিধা ও প্রায়োগিক প্রতিবন্ধকতা নিয়ে আলোচনা করেন।
পরিশেষে তিনি বলেন আপনি কি স্ব–উদ্যোগী? আপনার নিজের কাজ ঠিক রাখতে মোটিভেশন বা প্রণোদনার প্রয়োজন হবে। অনেক সময় ফ্রিল্যান্সিং খাতে কাজ করতে এসে ফ্রিল্যান্সাররা হতাশ হন। এমন সময়ে নিজের দায়িত্ব নিজেকে নিতে হবে। ফ্রিল্যান্সার মানে নিজের ব্যবসা, নিজেই ব্যবস্থাপক, নিজেই হিসাবরক্ষক। নিজের সঙ্গে মিটিং করতে হবে। সময়সীমার মধ্যে কাজ করার তাড়া থাকতে হবে। ক্রেতার প্রত্যাশা পূরণের তাড়া থাকতে হবে। অর্থাৎ, সব সময় নিজেকে কাজের চাপ, যোগাযোগের মতো বিষয়ে তটস্থ থাকতে হবে। তবে অনেক সময় হাতে কাজ না থাকতে পারে, তখন হতাশ হলে চলবে না। মনে রাখতে হবে, প্রতিটি কাজে ওঠানামা থাকে। নিজেকে মোটিভেশন দিতে হবে। নিজের কাজের প্রতি সদিচ্ছা ও আত্মনিয়োগ আপনাকে এগিয়ে রাখবে। নিজের কাজে শৃঙ্খলা থাকলে, স্বাধীন ও নমনীয় সময়ে কাজ করার সুবিধাও নিতে পারবেন।
মেম্বারদের প্রযুক্তি জ্ঞানে উন্নত জীবন গঠন,যুবাদের দক্ষতা উন্নয়ন ও টেকসই ক্যারিয়ার গঠনকে লক্ষ্য রেখে কাজ করছে চট্টলা ইঞ্জিনিয়ার্স ক্লাব।শুরুতে শুভেচ্ছা বক্তব্যে ক্লাবের ফাউন্ডার মডারেটর প্রকৌশলী আরিফুর রহমান বাপ্পি, সেমিনারের বিষয় বস্তু হলো- প্রযুক্তির এই যুগের সবচেয়ে জনপ্রিয় টপিকস “ফ্রিল্যান্সিং ।” যেই বিষয়ে ব্যাপক ধারণার জন্য ক্লাবের মেম্বারদের সকলের এতদিন অধীর আকুল আগ্রহ ছিল, সেটা আজ বাস্তবায়ন হলো।অনুষ্ঠানের সমাপনী বক্তব্যে ক্লাবের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী আতিক সুজন সাবইকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। বিশেষ করে সেমিনারের প্রধান আকর্ষণ নজরুল ইসলাম এর প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।এ সময় তিনি সেমিনারে কখন চট্টলা ইঞ্জিনিয়ার্স ক্লাবের উৎপত্তি, কেন এই সংগঠন প্রতিষ্ঠা করা, ক্লাবের লক্ষ্য, উদ্দেশ্য এবং চট্টলা ইঞ্জিনিয়ার্স ক্লাবের এজেন্ডাগুলি বিস্তারিত তুলে ধরেন।অনলাইন সেমিনারে ক্লাবের এডমিন, মডারেটর প্যানেল, শুভাকাঙ্ক্ষী ও সদস্যবৃন্দের মধ্যে যুক্ত ছিলেন- তৌহিদ নূর, নিউটন চৌং, জয়ন্ত রায় অভি, সানজিদা ইয়াকুব, আরিফুর রহমান বাপ্পি, ক্যামেলিয়া আফরিন আজাদ মুনসুর, কামাল উদ্দিন সাব্বির, মোহাম্মেদ রাসেল , মোহাম্মদ ইউনুস আব্দুর রহিম, শিলা, মোঃ আযম চৌধুরী, মোঃ মোশারফ মজুমদার, মোঃ আমরান ভূইয়া, তানযীল আহমেদ, আবুল হাসেম শিপন, রাফিয়া তাসনিম কাকলী, মোহাম্মদ রাসেল, তুহিন ভঞ্জ, রাসেল কান্তি রনি, সেলিনা আক্তার , মোঃ নাজমুল খাঁন প্রমুখ, সদস্য শুভা দাস, সুপন বরমন, আফরুজা জান্নাত রেশমি, সোলতানা রাজিয়া, সোহান লোকমান, মোহাইমিনুল হক হাসান, সেগুপ্তা নাসরিন তামান্না, এমডি আব্দুল আহাদ, আবু সালেক, সালমা আক্তার, রিফাত আল নিগার, বাবু, জাহেদ বাপ্পি, ইরফানুর ইসলাম, তানভির হোসাইন, জসীম উদ্দিন,তামজিদুল ইসলাম, মিরজা আশিক উদুদ, রুমা আক্তার, মো ফয়সাল, পুষ্পিতা দেওয়াঞ্জি, আজিজুল হাকিম দেভজিত রয়,বাপ্পি, সারজিন.

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •