আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

নেপালের করোনা পরিস্থিতি ধীরে ধীরে ভয়াবহ হয়ে উঠছে। বাড়ছে সংক্রমণ-মৃত্যু।

এমনকি দেশটির পরিস্থিতি ভারতের মতো হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন চিকিৎসকরা। এরমধ্যে দেশটিতে হাসপাতালগুলো রোগীতে পরিপূর্ণ হয়ে গেছে, সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি ভয়ের মূল কারণ।

এমন পরিস্থিতির মধ্যে দেশটির প্রধানমন্ত্রী অন্য দেশের কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন।
যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম সিএনএন-এর খবরে বলা হয়, নেপালে প্রতিদিন ১ লাখে ২০ জন করে করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন।

ভারতেও সংক্রমণের হার দু সপ্তাহ আগে এমন ছিল।
সরকারের দেওয়া তথ্যের ওপর ভিত্তি করে ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব রেড ক্রস অ্যান্ড রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটিস (আইএফআরসি) জানায়, গত সপ্তাহান্তে যে পরিমাণ নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে তার ৪৪ শতাংশই পজিটিভ এসেছে।

নেপালের রেডক্রসের চেয়ারপারসন ড. নেত্রা প্রসাদ তিমসিনা এক বিবৃতিতে বলেন, যদি যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া না হয় তবে ভারতের পরিস্থিতি এখন যেমন ভয়াবহ নেপালের পরিস্থিতিও তেমন হতে পারে।

নেপালের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ড. সামির আধিকারী বলেন, পরস্থিতি দিনকে দিন ভয়াবহ হয়ে উঠছে। ভবিষ্যতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে যে চলে যাবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

এক মাস আগেও নেপালে দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ছিল ১০০। এখন তা ৮ হাজার ৬০০ পেরিয়েছে। পরিস্থিতি এমন হওয়ার জন্য অনেকেই ভারতের সঙ্গে দেশটির অবাধ, খোলা সীমান্ত থাকাকে দায়ী করেছেন।

এ পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৩ লাখ ৭০ হাজার মানুষ। মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৫২৯ জনের। সুস্থ হয়েছেন ২ লাখ ৯২ হাজার ৪৯০ জন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •