সংবাদদাতাঃ
টেকনাফের উপকূলীয় ইউনিয়ন বাহারছড়ায় এক পরিবারের কাছ থেকে ৮ লাখ টাকা চাঁদা দাবী এবং না দেয়ায় হত্যার হুমকির অভিযোগে মামলায় মুলহোতাসহ ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
তারা হলো- স্থানীয় ২ নং ওয়ার্ড পুরান পাড়ার আবদুল হকের ৩ পুত্র দখলের মুলহোতা মোঃ রাশেল, জিয়াউল হক এবং জাহাঙ্গীর আলম।
৫ মে রাতে টেকনাফ বাহার ছড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ নুর মোহাম্মদের নেতৃত্বে একদল পুলিশ শাপলাপুর বাজার থেকে তাদের গ্রেফতার করে।
তবে, মামলার প্রধান আসামি সাবেক মেম্বার মোক্তার পলাতক রয়েছে।
তাদের গ্রেফতারের পর আদালতে প্রেরণ করেছে বলে জানিয়েছেন ইনচার্জ নুর মোহাম্মদ।
তিনি বলেন, আটককৃত আসামীরা অসহায় পরিবারের কাছ থেকে ৮ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে এবং না দিলে হত্যার হুমকি দেয়, জোরপূর্বক জমি দখল নেয়ার পায়তারা করে, অসহায় পরিবারের জায়গা দখলের উদ্দেশ্য অনধিকার প্রবেশ করে।
এ ঘটনায় ভুক্তভোগী পরিবার নিজেদের রক্ষায় মামলা দায়ের করেন যার নং ২১/২০২১ ইং।
মামলাটি তদন্ত করে তাদের আটক করা হয়েছে বলে ইনচার্জ নুর মোহাম্মদ জানান।
চাঁদাবাজির শিকার পরিবারের মোঃ তৈয়ব জানান- তাদের ২১শতক জমি গত ৪২বছর ধরে চাষাবাদ করে ভোগ-দখলীয় জমিতে বাঁশের ঘর তৈরী করে আসছিল। তাদের জমি দখলে নিতে অনধিকার প্রবেশ করার চক্রান্ত করে এবং ৮ লাখ টাকা চাঁদা না দিলে হত্যার হুমকি দেয় আসামিরা। পরে নিরাপ্ত্তার স্বাথে ও চাদাঁবাজদের বিরুদ্ধে টেকনাফ মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে বিষয়টি তদন্ত স্বাপেক্ষে পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়।
২৬ এপ্রিল দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তদন্ত পূর্বক ৩ জনক গ্রেফতার করেন। চাঁদাবাজরা হুমকি দিয়ে আসার পর পুলিশ বিষয়টি গুরুত্ব বিবেচনায় তদন্ত করে অভিযুক্ত ৩ জনকে আটক করে। প্রধান আসামি সাবেক মেম্বার মোক্তার পলাতক রয়েছে।
কম সময়ে আসামিদের আটক করায় পুলিশ প্রশাসনের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •