সংবাদ বিজ্ঞপ্তিঃ
কক্সবাজারের চকরিয়ার ডুলাহাজারা ইউনিয়নে চাঁদাবাজ-সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় আনার দাবিতে হাজারো নারী-পুরুষ মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে।
এ সময় তারা বিভিন্ন ব্যানার, ফেস্টুন ও প্ল্যাকাড হাতে মহাসড়কে এক ঘণ্টার মতো দাঁড়িয়ে এই কর্মসূচি পালন করে। কর্মসূচিতে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতাকর্মীসহ সর্বস্তরের মানুষও অংশগ্রহণ করেন।
বৃহস্পতিবার (৬ মে) দুপুর ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের ডুলাহাজারা স্টেশন ও সড়কের দুই পাশের প্রায় এক কিলোমিটারজুড়ে এই কর্মসূচি পালন করে ক্ষুদ্ধ নারী-পুরুষ।
কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া অনেকের হাতে থাকা প্ল্যাকার্ডে কয়েকজন চাঁদাবাজের নাম উল্লেখ করে তাদেরকে বয়কটের দাবি জানান।
এ সময় প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ চলমান রয়েছে ডুলাহাজারায়। এসব কাজ সুচারুরূপে বাস্তবায়ন করছেন ঠিকাদার এবং যুবলীগ নেতা হাসানুল ইসলাম আদর। কিন্তু স্থানীয় সরকারবিরোধী একটি চক্রের ইন্ধনে সম্প্রতি একদল সশস্ত্র চাঁদাবাজ ঠিকাদারের কাছ থেকে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে। ঠিকাদার সেই চাঁদা না দেওয়ায় প্রতিযোগীতার ভিত্তিতে তাঁর বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগসহ বিভিন্ন মাধ্যমে অপপ্রচারে নামে।

বক্তারা আরো বলেন, ডুলাহাজারায় চাঁদাবাজি করতে গিয়ে স্থানীয় ক্ষুদ্ধ জনতার রোষাণলে পড়ে কয়েকজন চাঁদাবাজ-সন্ত্রাসী। এ ঘটনাকে ভিন্নখাতে নিতে থানায় উল্টো একটি মামলা দায়ের করে ঠিকাদার ও যুবলীগ নেতা আদরসহ স্থানীয় যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে। এ ঘটনার পর থেকে ডুলাহাজারা ইউনিয়নের মানুষ ক্ষোভে ফুঁসে উঠে।

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- ডুলাহাজারা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ডা. আজিজুল মান্নান, ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক তৌহিদুল ইসলাম, যুগ্ম আহ্বায়ক আমান উল্লাহ ও কাইছার মো. বাবুল, কক্সবাজার সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন বাপ্পী, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সাইফুর রহমান, রেজাউল করিম টিটু, মৎস্যজীবী লীগের সদস্যসচিব শাহ আলম, আওয়ামী লীগ নেতা কাশেম, ইসহাক, ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য রফিক উদ্দিন প্রমূখ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •