স্পোর্টস ডেস্ক
গ্রানাদার বিপক্ষে অপ্রত্যাশিত হারের পর ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে জয়ের যেন স্বস্তি ফিরে পেয়েছে বার্সেলোনা। পরদিনই সতীর্থদের বাড়িতে নিমন্ত্রণ জানান অধিনায়ক লিওনেল মেসি। তাতেই ঝামেলায় পড়তে যাচ্ছেন বার্সা অধিনায়ক। অতিমারি করোনাভাইরাসের এ সময়ে বাড়িতে জনসমাগমের বিষয়টি ভালো ভাবে নেয়নি কাতালান সরকার।

সোমবার দুপুরে বাড়িতে বারবিকিউ পার্টির আয়োজন করেন মেসি। যেখানে সতীর্থরা প্রায় সবাই ছিলেন। লা লিগার শেষ গুরুত্বপূর্ণ চারটি ম্যাচের আগে নিজেদের মধ্যে বন্ধন আরও দৃঢ় করতেই মেসি বাড়িতে পার্টির আয়োজন করেছেন বলে সংবাদ প্রকাশ করেছে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যমগুলো। সেখানে লা লিগার কোভিড-১৯ প্রটোকল ভাঙা হয়েছে কি-না সে বিষয়টি তদন্ত করে দেখেছে কর্তৃপক্ষ।

জানা গেছে পার্টির আয়োজন গোপনেই করতে চেয়েছিলেন মেসি। কিন্তু তার বাড়িতে সতীর্থদের আসার একটি ছবি ফাঁস হয়ে পড়ায় ঝামেলায় পড়তে হচ্ছে তাকে। বিষয়টি শুধু লা লিগা কর্তৃপক্ষই নয়, নজরে এসেছে কাতালান সরকারেরও। মঙ্গলবার থেকেই এ বিষয়ে তদন্ত শুরু করে দিয়েছে লা লিগা কর্তৃপক্ষ। তবে কাতালান সরকার ঘোষণা করেছে যে এই সমস্যাটি বর্তমানে জনস্বাস্থ্য সংস্থার হাতে রয়েছে।

আর বিষয়টিতে যে সামান্য ছাড় দেওয়া হবে তা বেশ হুঙ্কার দিয়েই জানিয়ে দিয়েছেন স্থানীয় সরকারের ভাইস-প্রেসিডেন্ট পেরে আরাগোনেস, ‘প্রয়োজন হলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা দরকার। তদন্ত চলছে। প্রত্যেকের সঙ্গে কথা বলতে হবে। কেবল প্রতিবন্ধকতাগুলি মেনে চলার জন্য নয়ই। জনসাধারণের দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে আরও কঠোরতার সঙ্গে করতে চাই যেন এটা উদাহরণ হিসাবে কাজ করে।’

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের এ সময়ে নিয়ম অনুযায়ী কারো বাড়িতে সর্বোচ্চ ছয় জন বহিরাগত আসতে পারবে। যা বহাল থাকার কথা আগামী ৯ মে পর্যন্ত। আর এ বিষয়টিই তদন্ত করছে কর্তৃপক্ষ। মেসির বাড়িতে ছয় জনের বেশি উপস্থিত হলে বড় অঙ্কের জরিমানা এমনকি একাধিক ম্যাচের নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে পারেন মেসি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •