মোজাম্মেল হক, গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী):
গীতি কবির বকুলের জনপ্রিয় এই গানেই ফুটে উঠেছে কৃষ্ণচূড়ার প্রতি আবেগঘন ভালোবাসা ও তার রূপ দর্শনে প্রতীক্ষার কাঙ্খিত বাস্তব চিত্র।

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া বাইপাস সড়কের দু পাশে চোখ ধাঁধানো টুকটুকে লাল কৃষ্ণচূড়া ফুলে সেজেছে গ্রীষ্মের প্রকৃতি। সড়কের দু পাশ দিয়ে ছেড়ে গেছে অপরুপ সৌন্দর্যেরর লীলাভূমি। দেখেই মন জুড়িয়ে যায়। সাধারণত এই সময়টায় পথে-প্রান্তরে এখন ফুটছে কৃষ্ণচূড়া। দূর থেকে দেখলে মনে হয়, বৈশাখের রৈদ্দুরের সবটুকু উত্তাপ গায়ে মেখে নিয়েছে রক্তিম পুষ্পরাজি; সবুজ চিরল পাতার মাঝে যেন আগুন শিখা জ্বলছে। গ্রীষ্মের ঘামঝরা দুপুরে কৃষ্ণচূড়ার ছায়া যেন প্রশান্তি এনে দেয় অবসন্ন পথিকের মনে। তাপদাহে ওষ্ঠাগত পথচারীরা পুলকিত নয়নে, অবাক বিষ্ময়ে উপভোগ করেন এই সৌন্দর্য্য।

বুধবার দুপুরে সরেজমিনে ঢাকা খুলনা মহাসড়কের দু পাশে গোয়ালন্দ রেল স্টেশন রোড, তোরাই মোড়, বাজার রোড, দৌলতদিয়া বাইপাস সড়ক সহ বিভিন্ন অঞ্চলে ঘুড়ে দেখা যায়, বৈশাখে কৃষ্ণচূড়া তার লাল আবীর নিয়ে পাকা রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে আছে। দেখে মনে হচ্ছে কৃষ্ণচূড়া তার সমস্ত রঙ প্রকৃতির মাঝে ছড়িয়ে দিয়েছে। এই কৃষ্ণচূড়া গাছটির দিকে তাকালেই তার মুগ্ধতায় যে কারোরেই দৃষ্টি কেড়ে নেয়।

উপজেলা বন বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, কৃষ্ণচূড়ার আদি নিবাস পূর্ব আফ্রিকার মাদাগাস্কার। এই বৃক্ষ শুষ্ক ও লবণাক্ত অবস্থা সহ্য করতে পারে। ক্যারাবিয়ান অঞ্চল, আফ্রিকা, হংকং, তাইওয়ান, দক্ষিণ চীন, বাংলাদেশ, ভারতসহ বিশ্বের অনেক দেশে এটি জন্মে থাকে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কৃষ্ণচূড়া শুধুমাত্র দক্ষিণ ফ্লোরিডা, দক্ষিণ পশ্চিম ফ্লোরিডা, টেক্সাসের রিও গ্রান্ড উপত্যকায় পাওয়া যায়।

কৃষ্ণচূড়া গ্রীষ্মের অতি জনপ্রিয় ও পরিচিত ফুল। গোয়ালন্দ উপজেলার, রেলষ্টোশন, গরু হাট, বাসষ্টন্ড, দৌলতদিয়ার বাইপাস সড়কসহ বিভিন্ন পয়েন্টে সহ প্রত্যন্ত গ্রাম-গঞ্জে কৃষ্ণচূড়ার শাখায় শাখায় এখন লালে লাল হয়ে ফুটে আছে সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে এই ফুল।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •