সিবিএন ডেস্ক:
কোভিড পরিস্থিতিতে কূটনীতির বিষয়বস্তুতে কোনও পরিবর্তন না আসলেও এর সম্পাদন প্রক্রিয়ায় পরিবর্তন এসেছে। অনেক ক্ষেত্রে সরাসরি যোগাযোগের জায়গা করে নিয়েছে ভার্চুয়াল বৈঠক। ফোন বা ইমেইলে যোগাযোগও বেড়েছে অনেক।

মাঝে পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতির দিকে গেলেও এখন আবার খারাপের দিকে মোড় নিচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে কূটনীতি সম্পাদনের জন্য নেওয়া উদ্যোগ চলমান আছে এবং বিদেশে সেবা কার্যক্রম চলমান রাখার জন্য বিভিন্ন দেশে কর্মরত কর্মকর্তাদের সহায়তা দেওয়া হচ্ছে বলে জানান পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন।

পররাষ্ট্র সচিব বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এর আগে নিউ-নরমাল পরিস্থিতির সঙ্গে খাপ খাইয়ে চলার জন্য যে উদ্যোগগুলো নিয়েছিলাম, সেগুলো চলমান আছে। এরমধ্যে আবার নতুন করে পরিস্থিতি কিছুটা খারাপ হয়েছে, সেটিও উদ্বেগের কারণ।’

গতবার পরিস্থিতি সামাল দেওয়া হয়েছিল। এবার প্রেক্ষিত কিছুটা ভিন্ন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘গতবছর মধ্যপ্রাচ্য ও অন্যান্য দেশ থেকে যে বিপুল পরিমাণ বাংলাদেশি ফেরত নেওয়ার চাপ ছিল সেটা ম্যানেজ করার চেষ্টা করেছিলাম। অনেকাংশে সফলও হয়েছিলাম। কিন্তু এবার বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশিরা কাজ নিয়ে যাওয়া শুরু করেছে। এটা গত পাঁচ-ছয় মাসের প্রচেষ্টার ফসল।’

‘করোনার দ্বিতীয় ধাক্কার কারণে সবাই নিজেদের মতো করে কিছু ব্যবস্থা নিচ্ছে। এর ফলেও কিছু বিঘ্ন দেখা দিচ্ছে। আমরা সমস্যাগুলো কমানোর চেষ্টা করছি।’ জানান তিনি।

সচিব আরও বলেন, ‘এ ছাড়া অর্থনৈতিক কূটনীতির মধ্যে রফতানি ও অন্যান্য বিষয় আমরা অনেকাংশে পূরণ করতে যাচ্ছিলাম। বড় প্রকল্পগুলোও এগিয়ে যাচ্ছিল। কিন্তু নতুন পরিস্থিতির কারণে এটা কিছুটা ব্যাহত হচ্ছে। অন্যদিকে করোনার নতুন ঢেউয়ের কারণে অন্যদেশে বাজার চাহিদা কমে যাওয়ায় আমাদের পণ্য- বিশেষ করে তৈরি পোশাক কিছুটা সমস্যার মুখে পড়তে পারে। যেসব দেশে আমরা রফতানি করি তারা নতুন নিয়ম চাপিয়ে দিলে সমস্যা আরও বাড়বে।’

পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ‘আমাদের মিশনের মাধ্যমে অন্য দেশগুলোতে কী হচ্ছে এবং সেখান থেকে আমাদের জন্য শিক্ষণীয় কী আছে সেটার খোঁজও রাখছি।’

মাসুদ বিন মোমেন বলেন,‘দুর্ভাগ্যজনক হলো, মিশনে অনেকে করোনা আক্রান্ত হয়েছে। এর ফলে নিয়মিত সেবা দেওয়ার ক্ষেত্রেও সমস্যা হচ্ছে। তারপরও আমাদের কর্মকর্তাদের কাজ করার মন-মানসিকতা বেশি। এখান থেকে তাদের সমর্থন দিচ্ছি, যাতে লকডাউন বা অন্য পরিস্থিতিতে মিনিমাম সেবাটুকু দিতে পারে।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •