মোঃ আরাফাত সানী, টেকনাফ:
টেকনাফে দীর্ঘ ১৪ বছর আগে থেকে পরিবারের কাছ থেকে হারিয়ে যাওয়া হেলেনা আক্তার (মিমিয়া) নামে পটুয়াখালী গলাচিপা উপজেলার মানসিক ভারসাম্যহীন এক মহিলাকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ মহৎ কাজটি করেছেন টেকনাফের মানসিক রোগীদের জন্য তহবিল (মারোত) নামে গঠিত স্বেচ্ছাসেবামুলক সংগঠন।

সোমবার (৩রা মে) সকালে মানসিক রোগীদের তহবিল (মারোত) উদ্যোগে এই মহৎ কাজের অংশ হিসেবে এক মহিলা মানসিক রোগীকে তার বড়ভাই এর নিকট হস্তান্তর করা হয়।

এ সময় মিমিয়া’র বড় ভাই মোঃ ইসহাক ফেদা জানান, এই কঠোর লকডাউন উপেক্ষা করে আমি আমার বোনের খবর পেয়ে আত্মমানবতার টানে সেই পটুয়াখালীর গলাচিপা থেকে টেকনাফে এসেছি, তবে মানবিক সংগঠন (মারোত) আমার বোনসহ আমাকে চিকিৎসা ও যাতায়াতের জন্য আর্থিক সহযোগীতা হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন আমি ওনাদেন সংগঠনের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

এ সময় সংগঠনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোবারক হোসেন ভুইয়া সঞ্চালনায়, সভাপতি আবু সুফিয়ান এর সভাপতিত্বে সংক্ষিপ্ত অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই হস্তান্তর প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়।

হস্তান্তর প্রক্রিয়ায় কাজটি সম্পাদন করেন সংগঠনের সাখাওত তালুকদার। এ অনারম্বর মারোতে’র ২৯ তম হস্তান্তর অনুষ্ঠান সুসম্পন্ন করায় মারোতের সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন মারোতের কেন্দ্রীয় প্রধান উপদেষ্টা অধ্যাপক সন্তোষ কুমার শীল।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •