সিবিএন ডেস্ক:
আলোর স্বল্পতায় খেলা আগেভাগে বন্ধ না হয়ে গেলে দ্বিতীয় দিনেই শ্রীলঙ্কা ইনিংস ঘোষণা করে দিতো। সেটি হয়নি বলে তৃতীয় দিনের শুরু থেকেই দ্রুত রান বাড়িয়ে নেওয়ার চেষ্টা করতে থাকে স্বাগতিকরা। আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে তা করতেও থাকে লঙ্কানরা। ৩ ওভারের একটু বেশি সময় ব্যাট করে অবশেষে তারা ইনিংস ঘোষণা করেছে।

রমেশ মেন্ডিস আউট হয়ে হয়ে যাওয়ার পরপরই ৭ উইকেটে ৪৯৩ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করেছে শ্রীলঙ্কা। ৩৩ রানে তাসকিন আহমেদের চতুর্থ শিকার তিনি। অন্যদিকে ওয়ানডে মেজাজে ব্যাট করা নিরোশান ডিকবেলা অপরাজিত থাকেন ৭২ বলে ৭৭ রানে। ইনিংসটি সাজান তিনি ৮ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায়।

ক্যান্ডি টেস্টের দ্বিতীয় দিনের মতো তৃতীয় দিনেও উইকেট উদযাপন করেছেন তাসকিন। পেয়েছেন ক্যারিয়ারসেরা বোলিং ফিগার। এই পেসার ৩৪.২ ওভারে ১২৭ রান খরচায় পেয়েছেন ৪ উইকেট। মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম ও শরিফুল ইসলাম প্রত্যেকে নিয়েছেন একটি করে উইকেট।

দুই দিনের বেশি সময় ধরে ব্যাট করে শ্রীলঙ্কা খেলেছে ১৫৯.২ ওভার। রান তুলেছে ৩.০৯ গড়ে। তৃতীয় দিনে স্কোরে ২৪ রান ‍যোগ করতেই ইনিংস ঘোষণা করেছে তারা। আগের দিনের ৪৬৯ রান নিয়ে দিন শুরু করে ২১ বল খেলেছে লঙ্কানরা। ডিকবেলার সেঞ্চুরির পথে থাকলেও পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে ৪৯৩ রানকে যথেষ্ট মনে করেছে স্বাগতিকরা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
(শ্রীলঙ্কার প্রথম ইনিংস শেষে)
শ্রীলঙ্কা: প্রথম ইনিংসে ১৫৯.২ ওভারে ৪৯৩/৭ (ডিক্লে.) (লাহিরু থিরিমানে ১৪০, দিমুথ করুণারত্নে ১১৮, ওশাডা ফার্নান্ডো ৮১, নিরোশান ডিকবেলা ৭৭*, রমেশ মেন্ডিস ৩৩, পাথুম নিসানকা ৩০, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ ৫, ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা ২; তাসকিন আহমেদ ৩৪.২-৭-১২৭-৪, তাইজুল ইসলাম ৩৮-৭-৮৩-১, মেহেদী হাসান মিরাজ ৩৬-৭-১১৮-১, শরিফুল ইসলাম ২৯-৬-৯১-১)।

  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •