সিবিএন ডেস্ক:
খসড়া শিক্ষা আইনের কয়েকটি বিষয় নিয়ে আপত্তি তুলেছে ছয় মন্ত্রণালয়। আপত্তির ব্যাপারগুলো খতিয়ে দেখতে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির নেতৃত্বে ফের বৈঠকে বসার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

রোববার (২ মে) অনুষ্ঠেয় ওই বৈঠকে মন্ত্রণালয়গুলোর আপত্তির ব্যাখ্যা ও খসড়া শিক্ষা আইন চূড়ান্ত করার বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত হতে পারে বলে মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, ১১ বছর পর পাস হতে যাওয়া এই শিক্ষা আইনে সহায়ক বই হিসেবে নোট বই এবং কোচিংকে শর্ত সাপেক্ষে বৈধতা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। আর এ ব্যাপারেই আপত্তি তুলেছে জনপ্রশাসনসহ ছয় মন্ত্রণালয়।

ওই মন্ত্রণালয়গুলোর তরফ থেকে বলা হয়েছে, সুনির্দিষ্ট ব্যাখ্যা না থাকায় যে যার মতো করে সহায়ক বই বাজারজাত করবে। চলবে কোচিং বাণিজ্যও। এতে করে প্রায়োগিক জায়গায় আইনটির ব্যর্থ হওয়ার সম্ভাবনা থেকেই যাবে। এছাড়াও, থাকবে আইনের অপব্যবহারের সুযোগ।

এ ব্যাপারে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন সারাবাংলাকে জানান, খসড়া আইনের কয়েকটি বিধান নিয়ে আলোচনা হবে। রোববারের সভায় বিষগুলো চূড়ান্ত হবে।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি থেকে শিক্ষা আইনের খসড়া তৈরির ব্যাপারে কাজ করছে মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •