সিবিএন ডেস্ক:

দেশব্যাপী পেশাগত স্বাস্থ্য ও সুরক্ষা বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ২৮ এপ্রিল বুধবার জাতীয় পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেইফটি দিবস পালন করেছে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এবং কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য “মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, নিরাপদ কর্মপরিবেশ হোক সবার”।

দিবসটি উপলক্ষে বুধবার রাতে অনুষ্ঠিত ভার্চুয়াল সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শ্রম প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি বলেন, “বিশ্বব্যাপী এই ক্রাইসিস-এর মাঝেই বাংলাদেশ জাতিসংঘ কর্তৃক স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হওয়ার চূড়ান্ত সুপারিশ লাভ করেছে। এই অর্জনে এদেশের শ্রমজীবী মানুষের অবদান অপরিসীম। করোনা ভাইরাস সংক্রমণে সৃষ্ট মহামারির ফলে সারাবিশ্বে স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। গতবছরও এই দিবসের কার্যক্রমগুলো যথাযথভাবে পালন করা যায়নি। এবছরও আমরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে দেশব্যাপী স্বাস্থ্য সচেতনতা সৃষ্টির সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। শ্রমিক-কর্মচারীসহ সকল নাগরিকের সার্বিক সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য আমি সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি”।

ভার্চুয়াল সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব জনাব কে, এম, আব্দুস সালাম। অন্যান্যের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন আইএলও কান্ট্রি ডিরেক্টর মি. টুমো পুটিআইনেন, বাংলাদেশ এমপ্লয়ার্স ফেডারেশনের সভাপতি জনাব কামরান টি রহমান, বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান, এফবিসিসিআই সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম, বিকেএমইএ প্রতিনিধি, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন দপ্তর ও সংস্থার প্রতিনিধিবৃন্দ, অন্যান্য সরকারি ও বেসরকারি দপ্তর ও সংস্থার অতিথিবৃন্দ, শ্রমিক নেতৃবৃন্দ, মালিক প্রতিনিধিগণ, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার প্রতিনিধিগণ। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের মাহাপরিদর্শক মো: নাসির উদ্দিন আহমেদ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন উপমহাপরিদর্শক (সেইফটি) মোঃ কামরুল হাসান।

কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের ২৩টি উপমহাপরিদর্শকের কার্যালয়ের মাধ্যমে সারাদেশে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিভিন্ন আয়োজনের মাধ্যমে এবছর দিবসটি পালন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে উপমহাপরিদর্শকের কার্যালয়, গাজীপুরে আয়োজিত ‘হেলথ ক্যাম্প’ এর মাধ্যমে শ্রমিকদেরকে বিনামূ্ল্যে স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করা হয়।

উল্লেখ্য, কর্মক্ষেত্রে শ্রমিকের স্বাস্থ্য ও সুরক্ষা নিশ্চিতকরণ এবং পেশাগত দুর্ঘটনা ও দুর্ঘটনাজনিত মৃত্যু হ্রাসকরণের লক্ষ্যে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা (আইএলও) এর উদ্যোগে প্রতিবছর ২৮ এপ্রিল বিশ্বব্যাপী World Day for Safety and Health at Work পালন করা হয়। জাতীয় শিল্প স্বাস্থ্য নীতিমালার নির্দেশনা অনুযায়ী ২০১৬ খ্রিষ্টাব্দের ২৮ এপ্রিল বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো ‘জাতীয় পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেইফটি দিবস’ পালন করা হয়। দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা, স্মরণিকা প্রকাশ, শিল্পঘন এলাকায় ট্রাক শো, সারাদেশে পোস্টারিংসহ রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ সড়কদ্বীপ ও স্থানসমূহ সজ্জিতকরণ এবং একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি আয়োজন করা হয়। করোনাসৃষ্ট মহামারির কারণে এবছর জাতীয় দৈনিকে ক্রোড়পত্র প্রকাশ, দেশীয় ও আন্তর্জাতিক স্টেকহোল্ডারগণের সমন্বয়ে ভার্চুয়াল সভা, স্মরণিকা প্রকাশ, টেলিভিশন টকশো, সোশ্যাল মিডিয়া ক্যাম্পেইন ও হেলথ ক্যাম্পসহ সীমিত আকারে বিভিন্ন সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •