ইমাম খাইর, সিবিএনঃ
ডাকাতের ভয় দেখিয়ে মালয়েশিয়াগামী ৩০ জন রোহিঙ্গাকে নদীর তীর ফেলে পালিয়ে গেছে দালালচক্র।
মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) সকালে টেকনাফের উপকূলীয় ইউনিয়ন বাহারছড়ার বড়ডেইল সৈকত থেকে তাদের আটক করা হয়। সেখানে ৫ জন পুরুষ, ২০ নারী ও ৫ শিশু রয়েছে। এ সময় পাচারে জড়িত ট্রলারটিও জব্দ করা হয়েছে।
জানা যায়, গত ২২ এপ্রিল টেকনাফ, উখিয়া ও কক্সবাজার উপকূলের বিভিন্ন স্পট থেকে ছোট ছোট নৌকা নিয়ে ট্রলারে উঠে কুতুপালং, বালুখালী হতে অর্ধশতাধিক রোহিঙ্গা। গত ২৬ এপ্রিল রাতে এসব রোহিঙ্গা নিয়ে সাগর পথে অবৈধভাবে মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয় ট্রলারটি। রাতে এদিকে ওদিকে ট্রলার চালিয়ে ডাকাত দল পিছু নিয়েছে এমন কথা বলে এক পর্যায়ে মঙ্গলবার ভোরে ট্রলার ভিড়িয়ে দেয় মাঝি। এরপর প্রায় ১৫/২০ জন পুরুষ সটকে পড়ে। রোহিঙ্গা বোঝাই ট্রলার ভেড়ার খবর পেয়ে কোস্টগার্ড সকাল সাড়ে ৭ টার দিকে ঘটনাস্থলে পৌঁছে। বড় ডেইল উপকূল থেকে কোস্ট গার্ড ৩০ জন রোহিঙ্গাকে উদ্ধার ও ট্টলারটি জব্দ করে। পরে খবর পেয়ে পুলিশের একটি টিম স্পটে পৌঁছে। আটক রোহিঙ্গাদের বিস্তারিত তথ্য নিচ্ছে কোস্ট গার্ড।
এদিকে বাহারছড়া উপকূল দিয়ে রওয়ানা হলেও ট্রলারটি ডাকাতের কবলে পড়ে বলে জানিয়েছে রোহিঙ্গা আরোহীরা। তবে অন্য একটি সুত্র বলছে মালয়েশিয়া নেওয়ার কথা বলে দালালচক্র টাকা হজম করতে কৌশলের আশ্রয় নিয়ে ডাকাত আতংক ছড়িয়ে বড় ডেইল উপকূলে ভিড়িয়ে দিয়েছে।
টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ হাফিজুর রহমান বলেন, ২৭ এপ্রিল সকাল সাড়ে ৭ টার সময় কোস্ট গার্ড বাহারছড়া ইউনিয়নের বড়ডেইল এলাকায় সাগরে ২০ জন রোহিঙ্গা মহিলা, ৫ জন রোহিঙ্গা পুরুষ ও ৫ জন শিশু উদ্ধার করে। তারা মালয়েশিয়া যাওয়ার উদ্দেশ্যে গত পাঁচ দিন যাবত সাগরে বোটের মধ্যে অবস্থান করছিল। সাগরে ডাকাতের কবলে পড়ে বলে রোহিঙ্গারা জানায়।
ওসি জানান, রোহিঙ্গারা কক্সবাজারের বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে ছোট্ট ছোট নৌকায় করে গভীর সমুদ্রের জড়ো হয়ে বড় নৌকায় করে মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য রওয়ানা হয়েছিল। এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •