বাঁশখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ
চট্টগ্রামের বাঁশখালীর গন্ডামারা কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রে পুলিশ-শ্রমিক সংঘর্ষে পুলিশের গুলিতে নিহত মাহমুদ রেজা মিনহানের কবর জেয়ারত ও বাড়ি পরিদর্শন করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী ও তার প্রতিনিধি দল।

রবিবার (২৫ এপ্রিল) দুপুরে তিনি ও তার প্রতিনিধি দল নিহতের স্বজনদের সাথে কথা বলেন।

এসময় ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘আপনারা শিল্প কারখানা করেন সমস্যা নাই। শ্রমিকদের বার্তা আপনাদের কাছে পৌঁছায়নি? আপনারা আরো একটু সচেতন হলে প্রাণহানির ঘটনা ঘটতো না। ৫০ লাখ টাকা দিলেও জীবনটা তো ফিরে পাবে না।’

তিনি আরো বলেন, ‘মানুষ এভাবে প্রতারিত হয়েছে সিন্ডিকেটের কারণে। মিড্যাল ম্যান সিন্ডিকেট। তবে এটা পরিষ্কার তাদের সাথে হেলমেট বাহিনী ছিল। স্বাধীনতার পরে আমাদের এভাবে জীবন দিতে হয়, এটা দুঃখজনক। এটার জন্য বিচার বিভাগীয় তদন্ত হওয়া উচিত। আমরা খুশি হতাম যদি একজন বিচারপতি এখানে সরেজমিনে এসে দেখতেন। অন্তত ভবিষ্যতে শ্রমিকদের আর মৃত্যু হবে না। যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তাদেরকে পর্যাপ্ত টাকা দেওয়া হোক। জানাযা পড়ার টাকা না। নূন্যতম দাবী হবে ৫০ লাখ টাকা। একটা ১৮ বছরের ছেলের আরো ৪০ বছরের কর্ম জীবন ছিল। আমরা আরো চাই কি, এই যে মা আছেন, ভাই আছেন, তাদেরকে সরকারের আজীবন দেখা শোনা করা। ২০১৬ সালের ঘটনা। তাদের নীরবতা দেখে বুঝি। তারা যত্নবান ছিলেন না।’

গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি বলেন, ‘বাথরুমটা ঠিক করেন, মার্চ মাসের বেতন দেন, এইরকম দাবীর জন্য গুলি হয়, এটা আমরা ভাবতেও পারিনা। শ্রমিকদের বিক্ষোভ হলো, কেন গুলি চলল। আর পুলিশের সাথে হেলমেট বাহিনী ছিল।’

ঘটনায় আহত গন্ডামারার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের মোহাম্মদ খোরশেদ আলম পরিদর্শন দলকে ঘটনার আগের দিন এবং ঘটনার দিনের লোমহর্ষক বর্ণনা দেন।

বাঁশখালী এসেই দুপুরের দিকে জাফরুল্লাহ চৌধুরী সহ পরিদর্শন দলের সদস্যরা প্রথমে গন্ডামারায় কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প এলাকায় প্রকল্পের চীফ কো অর্ডিনেটর ফারুক আহমদের সাথে কথা বলেন। তিনি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী ও তার সাথে আসা প্রতিনিধিদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।

এসময় আনোয়ারা সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) হুমায়ুন কবির এবং বাঁশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সফিউল কবীর, ভাসানী অনুসারী পরিষদের মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, মুক্তিযোদ্ধা নঈম জাহাঙ্গীর, মুক্তিযোদ্ধা ইসতিয়াক আজিজ, রাষ্ট্র চিন্তার অ্যাডভোকেট হাসনাত কাইউম, গণস্বাস্থ্যের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু, ভাসানী অনুসারী পরিষদের সদস্য ব্যারিস্টার সাদিয়া আরমান ,শাহেদুল ইসলাম, মোহাম্মদ নাছির, মোজ্জাফর আহমদ, ছৈয়দুল আলম, ফরিদ আহমদ, মোহাম্মদ হাশেম, হাসান মারুফ, সেলিম নুর প্রমুখ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •