সিবিএন ডেস্কঃ

দেশের কোথাও কোথাও মৃদু তাপপ্রবাহ বইছিল। তা ক্রমেই বিস্তার লাভ করে কোথাও কোথাও মাঝারী থেকে তীব্র তাপপ্রবাহে রূপ নেওয়ার শঙ্কার কথা জানিয়েছিল বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর।

এরই মধ্যে আজ রোববার দেশের তাপমাত্রা সাত বছরের রেকর্ড ছাড়িয়েছে। আজ সর্বোচ্চ যশোর জেলায় ৪১ দশদিক দুই ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

সন্ধ্যায় ঢাকাস্থ আগারগাঁওয়ের বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ হাফিজুর রহমান এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘আজ দেশের মধ্যে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে যশোর জেলায়। সেখানে তাপমাত্রা ছিল ৪১ দশদিক দুই ডিগ্রি সেলসিয়াস।’
‘এর আগে ২০১৪ সালে চুয়াডাঙ্গা জেলায় সর্বোচ্চ ৪২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছিল’, যোগ করেন আবহাওয়াবিদ।

এদিকে সন্ধ্যা ৬টায় আবহাওয়া অধিদপ্তরের নিয়মিত আপডেট বুলেটিনে জানানো হয়েছে, আজ দ্বিতীয় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল চুয়াডাঙ্গায় ৪০ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ ছাড়া এদিন ঢাকার তাপমাত্রা ছিল ৩৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এটি ছিল রাজধানীতে আট বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা।
আর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলায়। সেখানকার তাপমাত্রা ছিল ১৯ দশমিক তিন ডিগ্রি সেলসিয়াস।
বুলেটিনে আরও বলা হয়, আগামী দুদিনে অস্থায়ীভাবে আকাশ মেঘলাসহ সারা দেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। আর পাঁচদিনের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, এই সময়ে বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।
আবহাওয়ার সংক্ষিপ্তসারে লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে। এতে তাপপ্রবাহের অবস্থা বর্ণনা করে বলা হয়েছে, ‘শ্রীমঙ্গল অঞ্চলসহ ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও রাজশাহী বিভাগের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে এবং আরও বিস্তার লাভ করতে পারে।’

হঠাৎ করেই কেন এই তাপমাত্রা বাড়ছে- এমন প্রশ্নে আবহাওয়াবিদ হাফিজুর রহমান বলেন, ‘বৈশাখ মাস সময়টাই এমন। আমাদের ধারণা, অনেকদিন যাবৎ বৃষ্টি না হওয়ায় এই তাপমাত্রা বেড়েছে। বৃষ্টি না হলে এই তাপমাত্রা আরও বাড়তে পারে অথবা এভাবে থাকতে পারে।’
আবহাওয়াবিদদের তথ্যমতে, তাপমাত্রা যদি ৩৬ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে থাকে তবে তাকে মৃদু তাপপ্রবাহ বলা হয়। তাপমাত্রা ৩৮ থেকে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস হলে তাকে বলা হয় মাঝারি তাপপ্রবাহ। আর তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি ছাড়িয়ে গেলে তাকে তীব্র তাপপ্রবাহ ধরা হয়।
আবহাওয়া কার্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, স্বাধীনতার পর ১৯৭২ সালের ১৮ মে রাজশাহীতে ৪৫ দশমিক এক ডিগ্রি সেলসিয়াস সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •