সিবিএন ডেস্ক:
করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় সপ্তাহ শেষে লকডাউন জারি করেছে ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্য সরকার। লকডাউনের কারণে বন্ধ রয়েছে মদের দোকান। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে মদ কিনতে না পেরে নেশার টানে হ্যান্ড স্যানিটাইজার খেয়ে সাত জনের মৃত্যু হয়েছে।

এ ঘটনা ঘটেছে মহারাষ্ট্রের যাভাৎমাল জেলার বানি গ্রামের বাসিন্দা। তাদের প্রত্যেকেই পেশায় শ্রমিক। পুলিশ জানিয়েছে, ওই ব্যক্তিরা সবাই মদ কিনতে চেয়েছিল। কিন্তু লকডাউনের কারণে দোকান বন্ধ ছিল। তবে তারা জানতো হ্যান্ড স্যানিটাইজারে অ্যালকোহল থাকে। তাই সেটাই খায় সবাই।

গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাদের স্থানীয় একটি সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু কাউকেই বাঁচানো যায়নি। এই ঘটনায় পূর্ণ তদন্তের আশ্বাস দিয়েছেন জেলা ম্যাজিস্ট্রেট।

করোনাকালে চারিদিকে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবহার বেড়েছে। জীবাণুমুক্ত থাকতে সার্বক্ষণিক স্যানিটাইজার ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। অন্তত ৭০ শতাংশ অ্যালকোহল মিশ্রিত স্যানিটাইজারকে উপযুক্ত বলা হয়েছে। কিন্তু চিকিৎসকরা বারবারই মনে করিয়ে দিয়েছেন, অ্যালকোহল মিশ্রিত এই স্যানিটাইজার কেবলমাত্র দেহের বাইরের অংশেই ব্যবহার করা নিরাপদ। শরীরের ভেতরে তা প্রবেশ করলে মারাত্মক ক্ষতি হবে। তারপরও মর্মান্তিক এই ঘটনার সাক্ষী থাকলো মহারাষ্ট্র।

ভারতে স্যানিটাইজার খেয়ে মৃত্যুর ঘটনা অবশ্য এটিই প্রথম নয়। এর আগে সংক্রমণের প্রথম পর্যায়ে গত বছর অন্ধ্রপ্রদেশেও একই রকম ঘটনা ঘটেছিল। সেখানে মদের নেশায় স্যানিটাইজার খেয়ে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছিল। সূত্র: দ্য ওয়াল।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •