রাশিদুল ইসলাম জুয়েল, সিঙ্গাপুর : গত বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) জনশক্তি মন্ত্রনালয়ের দ্বিতীয় মন্ত্রী মিস্টার তান সী লেং বলেন, ওয়েস্টলাইট ডরমিটরিতে ১৯ জন করোনায় পজিটিভ শ্রমিক মেরিন সেক্টরে কাজ করেন৷ তারা যে সাইটে কাজ করতেন সেখানে কাজ বন্ধ করা হয়েছে অর্থাৎ স্টপ ওয়ার্ক অর্ডার জারি করা হয়েছে।

ডরমিটরিতে করোনার রোগী শনাক্তের পর তিনি ভার্চুয়াল মিটিং আপডেট জানাতে এসে বলেন, মঙ্গলবার রোটিন রোস্টার টেস্টিং এ ৩৫ বছর বয়স্ক বাংলাদেশী করোনায় পজিটিভ হবার পর কর্তপক্ষ দ্রুত ক্লোজ কনট্রাকে আইসোলেশন ঘোষণা করেছে৷

প্রথমত ৩০ টি ক্লোজ কনস্ট্রাকশন স্থান (যেখানে সে কাজ করত এবং বাস করত) আইসোলেশন ঘোষণা করা হয়েছে এবং জায়গাগুলোকে কোয়ারেন্টাইন ঘোষণা করা হয়েছে৷

কোয়ারেন্টাইন থাকাকালীন সময় তার আরেক রুমমেট করোনায় পজিটিভ হয়৷ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে এই শ্রমিক মেরিন সেক্টরে সুপারভাইজার হিসেবে কর্মরত।

দ্বিতীয়ত স্পেশাল টেস্টিং করা হয়। এবং ১২০০ শ্রমিককে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়। স্পেশাল টেস্টে ১৭ জন শ্রমিক করোনায় পজিটিভ হয়। যারা করোনার ভ্যাকসিন নেননি। তবে পূর্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হয়েছেন অর্থাৎ করোনায় রিকভার৷

তাদেরকে দ্রুত NCID এর অধীনে আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে। রিকভার হবার পরও কেন করোনায় পজিটিভ হলো তা জানার জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও NCID তদন্ত করছে।

ডরমিটরির ব্লকের শ্রমিকদের মাঝে সংক্রমণ রোধ করতে সবাইকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়। পুরো ডরমিটরির বাসিন্দাদের স্পেশাল টেস্ট করা হবে। টেস্টের রেজাল্ট না আসা পর্যন্ত কেউ ডরমিটরি থেকে বের হতে পারবে না।

  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •