এস. এম. তারেক
কক্সবাজার সদরের ইসলামাবাদবাসীর দুর্দশা লাঘবে ইসলামপুর ইসলামাবাদ ইউনিয়নকে বিভক্তকারী হযরত ডুলাফকির (রহঃ) মাজারের পশ্চিম পার্শ্বস্থ পয়েন্টে শ্রীঘ্রই একটি ওভার ব্রীজ নির্মাণ করা হবে এবং রাস্তাটি সহসায় কার্পেটিংয়ের আওতায় আনা হবে।
এছাড়া এতদাঞ্চলের বরেণ্য সুফী সাধক হযরত ডুলা ফকির (রহঃ) নামানুসারে সড়কটির নামকরনের উদ্যোগ নেয়া হবে।
শুক্রবার বাদ জুমা কক্সবাজার সদর উপজেলাধীন ইসলামপুর ইসলামাবাদ ইউনিয়নকে বিভক্তকারী হযরত ডুলাফকির (রহঃ) মাজারের পশ্চিম পার্শ্বস্থ পয়েন্টে একটি ওভার ব্রীজ নির্মাণের দাবীতে সভায় সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
ইসলামাবাদের ইউপি চেয়ারম্যান নুর ছিদ্দিকের সভাপতিত্বে এবং ইসলামাবাদের ইউপি সদস্য ও সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আবদুর রাজ্জাকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার সদর উপজেলা আ’লীগ সভাপতি আবু তালেব, জেলা যুবলীগের সহসভাপতি হুমায়ুন কবির হিমু, ইসলামাবাদের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী লুৎফুর রহমান আজাদ, ইসলামপুরের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী শরীফ কোম্পানী, একই ইউনিয়নের অপর সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হাছন আলী, ইসলামপুরের সাবেক চেয়ারম্যান মাস্টার আবদুল কাদের, ইসলামপুর ইউনিয়ন আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মনজুর আলম দাদা এবং এলাকাবাসীর পক্ষে আবদুর রহমান।
উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জালালাবাদের ইউপি চেয়ারম্যান ইমরুল হাসান রাশেদ, কক্সবাজার সদর উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রাজীবুল হক চৌধুরী রিকো, ইসলামপুর ইউনিয়ন আ’লীগ সহসভাপতি ছৈয়দ আলম, সাধারন সম্পাদক শাহজাহান চৌধুরী, ঈদগাঁও ইউনিয়ন যুবলীগ সাধারন সম্পাদক রাশেল উদ্দিন রাশেদ, সদর উপজেলা যুবলীগ সহসভাপতি মিজানুল হকসহ আ’লীগ ও সহযোগী সংগঠণসমুহের অসংখ্য নেতাকর্মী।
উপস্থিত ভূক্তভোগীরা জানায়, চট্টগ্রাম দোহাজারী রেল প্রকল্পের ইসলামাবাদ ইসলামপুর ইউনিয়নের হযরত ডুলাফকির (রহঃ) মাজারের পশ্চিম পার্শ্বস্থ পয়েন্টে পাহাড় কেটে রেল লাইন নির্মানকালে রাস্তার দু’পাশে বিশাল খাদের সৃষ্টি হয়। এতে করে রেল লাইনের দুপাশের কয়েকশ পরিবার চরম দুর্দশায় নিপতিত হয়। রেল লাইনের খাড়া অংশ পেরিয়ে মুল রাস্তায় আসতে দুপাশের কয়েক হাজার জনগনকে প্রতিনিয়ত নানানরকম বিড়ম্বনার সম্মুখীন হতে হয় এবং অনেক সময় দুর্ঘটনার শিকারও হয়েছেন কেউ কেউ। বিশেষ করে আসন্ন বর্ষা মৌসুমে পিচ্ছিল রাস্তা পেরিয়ে মুল রাস্তায় যাওয়াটা পথচারীদের জন্য চরম কষ্টসাধ্য বলে জানালেন ওই এলাকার বাসিন্দা শফিকুল ইসলাম। স্থানীয়দের দাবীর মুখে রেল কর্তৃপক্ষ ওই স্থানে একটি ওভার ব্রীজ নির্মানের আশ্বাসও প্রদান করেছিলেন কিন্ত বর্তমানে ওই স্থানে রেল লাইনের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে হলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ অত্যন্ত জনগুরুত্বসম্পন্ন এ ব্যাপারটি নিয়ে অদ্যবধি কোন ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি।
স্থানীয় বাসিন্দা বশির আহমদ জানান, রেল লাইনের দুপার্শ্বের গ্রামগুলোতে প্রায় ৪০ হাজারেরও বেশী লোকের অধিবাস এবং পুরোনো রাস্তাটি জেলার একমাত্র লবণ শিল্প নগরী ইসলামপুর ইউনিয়নের সংযোগ সড়ক। সড়কটি দিয়ে প্রায় ১০ হাজারেরও অধিক বিভিন্ন শ্রেণি পেশার লোকজন চলাচল করে প্রতিদিন। ইসলামাবাদের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আবদুর রাজ্জাক জানান, হযরত ডুলা ফকির (রহঃ)’র পাহাড়ে ওই এলাকার বাসিন্দাদের একমাত্র কবরস্থান। রেল লাইন পেরিয়ে কবরস্থানে লাশ নিতে অনেক কষ্ট পেতে হচ্ছে স্থানীয়দের। এছাড়া অসুস্থ, বৃদ্ধ, শিশু এবং সন্তান সম্ভাবা মা’দের হাসপাতালে প্রেরণ করতেও নিদারুন কষ্টের সম্মুখীন হতে হয় স্থানীয়দের।
আলোচনা অনুষ্টানে প্রধান অতিথি সাংসদ কমল এলাকাবাসীর দুর্দশা লাঘবে ওই স্থানে শ্রীঘ্রই একটি ওভার ব্রীজ নির্মানের আশ্বাস দিলে এলাকাবাসী স্বস্তির নিশ্বাস ফেলে।

  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •