বাঁশখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ গত ১০ এপ্রিল পেকুয়া উপজেলার রাজাখালী আরবশাহ্ বাজারে আ.লীগের কেন্দ্রীয় ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক উপকমিটির কর্মসূচিতে হামলার ঘটনায় হুশিয়ারী উচ্চারণ করে আ.লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত নন্দী বলেছেন, ‘যারা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটির কর্মসূচীকে বাজার দখলের গুজব ছড়িয়ে হামলা করেছে এবং কর্মসূচী বানচাল করেছে তাদের কাউকে রেহাই দেওয়া হবে না।’

বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ১১টায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপ-কমিটির দ্বিতীয় মিটিং ভার্চুয়ালি মিটিংয়ে তিনি এ কথা বলেন।

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য, কেন্দ্রীয় ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটির চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এ কে এম রহমত উল্লাহ এমপির সভাপতিত্বে, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক জননেতা বাবু সুজিত রায় নন্দী সঞ্চালনায় উক্ত ভার্চুয়ালি মিটিংয়ে অংশ নেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ উপ-কমিটির সদস্য ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক ( সিনিয়র সহ- সভাপতি মোঃ এরশাদুর রহমান চৌধুরী।

এসময় এরশাদুর রহমান চৌধুরী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় আওয়ামী লীগ করা কি অপরাধ? বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে লালন করা কি বড় অপরাধ? আর যদি অপরাধ নাই বা হয়ে থাকে তাহলে কেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের প্রোগ্রাম করতে আমাকে বাধা দেওয়া হয়েছে? আমি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের কাছে এর বিচার চাই। এই আরবশাহ্ বাজার দীর্ঘদিন ধরে পেকুয়ার বিএনপি নেতা এপিএস সালাহউদ্দিনের অনুসারী গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী ওরফে গিয়াস উদ্দিন মিয়া এবং শামসুদ্দিন চৌধুরী ওরফে শামসুদ্দিন মিয়ার দখলে রয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, জাতির পিতার কন্যা, আমার প্রাণের নেত্রী এ দেশের সফল প্রধানমন্ত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ বিরোধী সকল ষড়যন্ত্র শক্ত হাতে মোকাবিলা করা হবে ইনশাআল্লাহ্। একদিন না একদিন আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে জননেত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতায় আমার পৈত্রিক সম্পত্তি আরবশাহ্ বাজার ফিরে পাবো বলে আশা রাখি।’

উল্লেখ্য, গত ১০ এপ্রিল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটির উদ্যোগে পেকুয়ার রাজাখালী আরবশাহ্ বাজারে করোনা প্রতিরোধে জনসচেতনতা মূলক কর্মসূচীসহ করোনা প্রতিরোধ সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হলে বাজার কমিটির নেতারা বাজার দখলের গুজব রটিয়ে আওয়ামী লীগের কর্মসূচীতে হামলা চালায়। এই বাজারের দখলদারিত্ব পাওয়া নিয়ে মামলায় সরকার ৩৬ বছর যাবত রাজস্ব হারাচ্ছে। সূত্র জানায়, সরকার গত ৩৬ বছরে প্রায় ১০ কোটি টাকার রাজস্ব বঞ্চিত হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ‘জাতির পিতার কন্যা, আমার প্রাণের নেত্রী এ দেশের সফল প্রধানমন্ত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ বিরোধী সকল ষড়যন্ত্র শক্ত হাতে মোকাবিলা করা হবে ইনশাআল্লাহ্। একদিন না একদিন আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে জননেত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতায় আমার পৈত্রিক সম্পত্তি আরবশাহ্ বাজার ফিরে পাবো বলে আশা রাখি।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •