নীতিশ বড়ুয়া, রামু:

কক্সবাজারের রামুতে বাংলাদেশ চ্যারিটেবল সংঘ হাসপাতালের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন হয়েছে। রামুর ঐতিহাসিক রাংকুট বনাশ্রম বৌদ্ধ মহাতীর্থের অধ্যক্ষ ভদন্ত কে শ্রী জ্যোতিসেন থের’র ৩৯ তম জন্মদিন উপলক্ষে এ হাসপাতালের ভিত্তিপ্রস্তর ও ইফতার আয়োজন করা হয়।
মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) সন্ধ্যায় বাংলাদেশ চ্যারিটেবল সংঘ হাসপাতালের ভিত্তি প্রস্তর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার-৩(সদর-রামু) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল।
এমপি কমল বলেন, কে শ্রী জ্যোতিসেন থের ঐতিহাসিক রাংকুট বনাশ্রম বৌদ্ধ মহাতীর্থের দায়িত্ব নেয়ার পর দিনে দিনে রাংকুটের চিত্র পাল্টে যাচ্ছে। তিনি মানবতাবাধি ও সম্প্রীতির মানুষ হিসেবে সর্বত্র প্রশংসীত একজন মানুষ।
তাঁর মেধা, ত্যাগ, সততা এবং উন্নয়নমুখি কর্মই প্রমানিত তিনি শুধু বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের নয়, তিনি আধুনিক শিল্পমনের অসাম্প্রদায়িক চেতনার মানুষ। উন্নয়ন কর্মযজ্ঞের মাধ্যমে রাংকুট বনাশ্রমকে দেশের অন্যতম প্রতিষ্ঠান হিসেবে রূপান্তর করেছেন।
এমপি কমল বলেন, এই রাংকুটে বৌদ্ধ পূণ্যার্থী যেমন আসে তেমনি ঐতিহাসিকগণ ও পর্যটকরা রাংকুট ভ্রমনে আসে। কে শ্রী জ্যোতিসেন ভিক্ষুর উদ্যোগে আজকে যে হাসপাতালের ভিত্তিপ্রস্তর করা হলো, এটি প্রতিষ্ঠা হলে স্বাস্থ্যসেবায় রামু আরো একধাপ এগিয়ে যাবে। আমরা যারা উন্নত কক্সবাজার-রামুর স্বপ্ন দেখি সে স্বপ্নে আজ আরো একটি উন্নয়ন সংযোজন হলো। হাসপাতাল প্রতিষ্ঠায় এমপি কমল সর্বোচ্চ সহযোগিতা দেয়ারও ঘোষনা দেন।
উখিয়া বিশ্বজ্যোতি মিশন কল্যাণ ট্রাষ্টের প্রতিষ্ঠাতা ভদন্ত কুশলায়ন মহাথের’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ভিত্তি প্রস্তর অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধক ছিলেন ঐতিহাসিক রাংকুট বনাশ্রম তীর্থস্থানের অধ্যক্ষ ও
বাংলাদেশ চ্যারিটেবল সংঘ হাসপাতালের উদ্যোক্তা ভদন্ত কে শ্রী জ্যোতিসেন থের।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন রাজারকুল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মফিজুর রহমান মফিজ, রামু উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক তপন মল্লিক, রামু উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক নীতিশ বড়ুয়া, সমাজসেবক মোহাম্মদ হোসেন সানি, রাজারকুল ইউনিয়ন পরিষদের শাহাবুদ্দিন মেম্বার প্রমুখ।
হাসপাতালের উদ্দোক্তা কে শ্রী জ্যোতিসন থের বলেন, ৫ তলা বিশিষ্ট “বাংলাদেশ চ্যারিটেবল সংঘ হাসপাতাল” এর প্রাথমিক বাজেট ধরা হয়েছে ২০ কোটি টাকা। হাসপাতালটির ভিত্তিপ্রস্থরের মাধ্যমে আরো একটি স্বপ্ন পূরণের শুভ সূচনা হলো। তিনি বলেন, স্বীয় হৃদয়ে জমে রাখা একটি হাসপাতাল নির্মাণের স্বপ্নকে আজ জন্মদিনে ভিত দিতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে হচ্ছে। হাসপাতালটি প্রতিষ্ঠা হলে দেশে চিকিৎসার অভাবে অসহায় বৌদ্ধ ভিক্ষু, ইমাম, পুরোহিত ও পাদ্রিগণসহ চিকিৎসা খরচে অক্ষম ব্যক্তিগণ অনায়সে ফ্রি চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করতে পারবেন। তিনি হাসপাতাল প্রতিষ্ঠায় সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছেন।
অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াত করেন কামাল উদ্দিন, পবিত্র গীতা থেকে পাঠ করেন সুজন চক্রবর্তী এবং পবিত্র ত্রি-পিটক থেকে পাঠ করেন তাপসেন ভিক্ষু।
উল্লেখ্য যে, ভদন্ত কে শ্রী জ্যোতিসেন মহাথের’র ৩৮ তম জন্মবার্ষিকীতে ঐতিহাসিক রাংকুট তীর্থস্থানে ‘মা-বাবা বৃদ্ধাশ্রম’ নামে একটি আশ্রম প্রতিষ্ঠা করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •