বার্তা পরিবেশক :
শহরের কলাতলীস্থ সৈকত পাড়ায় স্বপ্ন রিসোর্ট দখলের চেষ্টা চালিয়েছে একদল সন্ত্রাসি। এসময় হোটেলের দরজা, জানালা, সিসিটিভি ক্যামেরা ভাংচুরসহ ক্যাশ ড্রয়ার ভেঙ্গে নগদ সাড়ে ৫ লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ ওঠেছে। পরে হোটেল মালিক জাতীয় সেবা ৯৯৯ এ ফোন করলে কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। পাশাপাশি সন্ত্রাসি ও সংঘবদ্ধ দখলবাজরা পালিয়ে যায় বলে জানা যায়।

এদিকে এ ঘটনায় স্বপ্ন রিসোর্ট এর ভাড়াটিয়া মালিক আফসানুর রেজা বাদী হয়ে ১৮ জনকে এজাহারভুক্ত আসামী করে এবং ৬০/৭০ জনের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় এজাহার দায়ের করেছে।

এজাহারে প্রকাশ, দীর্ঘদিন ধরে ঈদগাঁও দক্ষিন লরাবাগ এলাকার বর্তমানে সৈকতপাড়ায় বসবাসরত মৃত রিয়াজ এর পুত্র  নাছির উদ্দিন,  সাদেক হোসেন খোকা, মনজুর প্রকাশ ফেরেতা মনজুর ও   এনামের নেতৃত্বে ১৩ এপ্রিল মঙ্গলবার দুপুরে লোহার রড, কিরিচ ও অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে স্বপ্ন রিসোর্ট দখলের জন্য হামলা চালায়। এসময় বাধা দিতে গিয়ে হামলাকারিদের বেধড়ক মারধরের শিকার হয়ে গুরুতর আহত হয় হোটেল ম্যানেজার দেলোয়ার হোসেন, কর্মচারি রিদুয়ান, শাকিব, আফসান ও তাফহিনসহ আরো বেশ কয়েকজন। হামলার পাশাপাশি দখলবাজরা হোটেলের সিসিটিভি ক্যামেরা, দরজা, জানালা, এলইডি টিভি, কম্পিউটার ও রিসিভশনে ব্যাপক ভাংচুর চালায়। এছাড়া কর্মচারিসহ ভাড়াটিয়া মালিকের মোবাইল সেট ছিনিয়ে নিয়ে যায়। পরে জাতীয় সেবা ৯৯৯ এ ফোন করে সন্ত্রাসি ও দখলবাজদের হাত থেকে রক্ষা পায় বলে জানান স্বপ্ন রিসোর্টের ভাড়াটিয়া মালিক আফসানুর রেজা।

তিনি বলেন, নাছির,  মনজুর, খোকা ও এনামের নেতৃত্বে এই হামলা হয়েছে। তাদের সাথে আরো ৬০/৭০ জন মত নারী পুরুষ ছিল। তৎমধ্যে ১৮ জনকে আসামী করে বাকীদের অজ্ঞাত দেখিয়ে এজাহার দায়ের করা হয়েছে।

অভিযান পরিচালনাকারি দারোগা এএসআই শাহানুর জানান, মঙ্গলবার দুপুরে স্বপ্ন রিসোর্ট নামের একটি হোটেল দখল বেদখলের চেষ্টা চালানো হয়। পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনা হয়। এসময় নিজেদের হোটেল দাবী করে দখলের চেষ্টা চালানোর কারনে নাছিরসহ কয়েকজনকে বসিয়ে রাখা হয়েছিল।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনর্চাজ শেখ মনিরুল গীয়াস জানান, হোটেলে হামলার ঘটনা শুনার পর পরেই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। পাশাপাশি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে কয়েক ঘন্টা পুলিশ ওই ঘটনাস্থলে রাখা হয়। এই ব্যাপারে বর্তমান ভাড়াটিয়া মালিক আফসানুর রেজা নামের এক ব্যক্তি বাদী হয়ে একটি এজাহার দায়ের করেছেন। তবে তদন্ত করে সঠিক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •