মোঃ নাজিম উদ্দিন, দক্ষিণ চট্টগ্রাম :
দক্ষিণ চট্টগ্রামে অর্ধশতাধিক গ্রামে কিছু সংখ্যক মানুষ আজ মঙ্গলবার থেকে পবিত্র রোজা পালন শুরু করেছে। গতকাল সোমবার রাত থেকে তারা তারাবির নামাজ আদায় ও সেহেরি খাওয়া শুরু করেছে। সাতকানিয়ার সোনাকানিয়া মির্জারখীল দরবার শরীফের মুরিদগণ সৌদিআরবের সাথে মিল রেখে অন্যান্য বছরর মতো এবারও একদিন আগ থেকে রোজা পালন শুরু করেছে।
মির্জারখীল দরবার শরীফ সূত্রমতে, সাতকানিয়ার মির্জারখীল, এওচিয়ার গাটিয়া ডেঙ্গা, মাদার্শা, খাগরিয়ার মইশামুড়া, পুরানগড়, চরতির সুইপুরা, চন্দনাইশের কাঞ্চননগর, হারালা, বাইনজুরি, কানাই মাদারি, সাতবাড়িয়া, বরকল, দোহাজারী, জামিরজুরি, বাঁশখালীর কালিপুর, চাম্বল, শেখরখীল, ছনুয়া, আনায়ারার বরুমছড়া, তৈলারদ্বীপ, লোহাগাড়ার পুটিবিলা, কলাউজান, বড়হাতিয়া এবং পটিয়া, বোয়ালখালী, হাটহাজারী, সন্দ্বীপ, রাউজান ও ফটিকছড়ির কয়কটি গ্রামসহ চট্টগ্রামের অর্ধশতাধিক গ্রামের কিছু সংখ্যক মানুষ আজ রোজা পালন শুরু করেছে। এছাড়া পার্বত্য জেলা বান্দরবান লামা, আলীকদম, নাইক্ষ্যাংছড়ি, কক্সবাজারর চকরিয়া, টকনাফ, মহশখালী ও কুতুবদিয়ার কয়কটি গ্রামে থাকা মির্জারখীল দরবার শরীফের মুরিদরাও আজ থেকে রোজা পালন শুরু করেছে।
মির্জারখীল দরবার শরীফের মুরিদ ও মির্জারখীল আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক বজলুল করিম চৌধুরী জানান, আমাদের পুরো গ্রামের মানুষ আজ রোজা পালন শুরু করেছে। চট্টগ্রামের বিভিন উপজলার অন্তত অর্ধশতাধিক গ্রামে থাকা দরবার শরীফের মুরিদরাও রাজা শুরু করছে। এছাড়াও দেশের বিভিন অঞ্চলে থাকা মির্জারখীল দরবার শরীফের মুরিদরা একই সাথে রোজা পালন শুরু করেছে। আমরা সবাই গতকাল থেকে তারাবির নামাজ আদায় ও সেহেরি খাওয়া শুরু করছি। মির্জারখীল দরবার শরীফের অনুসারীরা দুই শত বছরের অধিক সময় ধরে সৌদিআরবের সাথে মিল রেখে রোজা পালন ও ঈদ উৎযাপন করে আসছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •