সিবিএন ডেস্ক:
রমজানে তারাবির নামাজ আদায় নিয়ে গত বছরের মতো এ বছরও নতুন নির্দেশনা আসছে। করোনা সংক্রমণের কারণে এবারও গতবছরের মতো সুরক্ষানীতি মেনেই নামাজ আদায়ে উৎসাহিত করবে সরকার। এ বিষয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ে আলোচনা চলছে। সোমবার (১২ এপ্রিল) বিকালের আগে বা আগামীকাল মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) এ বিষয়ে নির্দেশনা জারি করা হবে। ধর্ম মন্ত্রণালয় ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনসূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের দীনী দাওয়াত ও সংস্কৃতি বিভাগের পরিচালক আনিছুর রহমান সরকার বলেন, ‘আজকে মন্ত্রণালয়ে আলোচনা হচ্ছে। সেখান থেকে সিদ্ধান্ত আসার পরই আজ বা কাল সকালে সার্কুলার জারি হবে।’

গত বছরের ৬ এপ্রিল মুসল্লিদের ঘরে নামাজ পড়ার নির্দেশ দিয়েছিল সরকার।

আলেমরা বলছেন, করোনা সংক্রমণ রোধে সতর্ক থাকতে হবে। রোজার সঙ্গে মসজিদে জমায়েত হওয়া বা মসজিদে আসার কোনও সম্পর্ক নেই। রোজা, ইফতার, সেহেরি—সব তো ঘরেই হবে।

সোলাকিয়া ঈদগাহের খতিব মাওলানা ফরীদউদ্দীন মাসঊদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেছিলেন, ‘তারাবির নামাজ মৌলিকভাবে মসজিদের চেয়ে ঘরে পড়লে সওয়াব বেশি। আমরা কোরআন শরিফ খতমের জন্য মসজিদে জামাতে পড়ি, সবাই তো আর হাফিজ না। তাই, রমজানের ইবাদত হিসেবে কোনও অসুবিধা হবে না। কেবল এতেকাফের সঙ্গে মসজিদের সম্পর্ক, এছাড়া কোনও কিছুর সঙ্গে মসজিদের সম্পর্ক নাই।’

এতেকাফের প্রসঙ্গে মাওলানা মাসঊদ আরও বলেছেন, ‘এতেকাফ হচ্ছে সুন্নতে মুয়াক্কাদাহ, ফরজ না। এটা যদি মুয়াজ্জিন সাহেবও করেন তাহলেও আদায় হয়ে যাবে। আর তারাবির নামাজ মসজিদে পড়তে হবে এমন কথা নেই। আল্লাহওয়ালারা এশার নামাজ পড়ে বাসায় গিয়ে তারাবি পড়েছেন।’

প্রসঙ্গত, গত বছর সৌদি আরবেও মসজিদে তারাবির জামাত হয়নি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •