আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

সামরিক অভ্যুত্থান বিরুদ্ধে চলমান সংঘর্ষে জীবন বাঁচাতে নিজ দেশ ছেড়ে পালাচ্ছেন মিয়ানমারের বেসামরিক নাগরিকরা। যারা সীমান্তের খুব কাছে বসবাস করেন তারা ভারতে আশ্রয় প্রার্থনা করছেন। খবর বিবিসি।

বিবিসি হিন্দি’র প্রতিনিধি রঘভেন্দ্র রাও’র বরাত দিয়ে গণমাধ্যমটি জানিয়েছেন, ভারতে আশ্রয় নেওয়াদের মধ্যে মিয়ানমারের ৪২ বছরের এক নারী রয়েছেন। যার নাম মাখাই (ছদ্দ নাম)। তিনবারের চেষ্টায় মাখাই অবশেষ ভারত পালিয়ে যেতে সক্ষম হন। তিনি বন পার হওয়ার পর একটি ময়লার ট্রাকে করে ভারত সীমান্তে পৌঁছান। বাকিরা ভূগর্ভস্থ ড্রেন দিয়ে যায়। ড্রেন সীমান্তের কাছের গ্রামগুলোকে যুক্ত করেছে।

তবে গত দু’বারের মতো ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) মাখাইকে আর থামায়নি। এবার তাকে ভারতে ঢুকতে দিয়েছে। এ মাসের শুরুর দিকে মিয়ানমারের সীমান্তবর্তী জেলা তামুতে অবস্থিত নিজ বাড়ি থেকে বোন ও মেয়েকে নিয়ে পালান তিনি। তারা উত্তর-পূর্ব ভারতের মণিপুর রাজ্যে দিয়ে প্রবেশ করেছেন। তারা কেবল তাদেরই বাঁচাতে পেরেছিল বলে জানান ওই নারী।

এ বিষয়ে মাখাই বলেছিলেন, এখনেই আমার পালানোর সুযোগ ছিল। যদি আমি আরও কিছু সময় অপেক্ষা করতাম তাহলে হয়তো এই সুযোগও পেতাম না।

প্রসঙ্গত, গত ফেব্রুয়ারি থেকে সংঘর্ষ চলছে মিয়ানমারে। নির্বাচিত সরকারের কাছ থেকে সামরিক বাহিনী ক্ষমতা দখল করার পর দেশটির শীর্ষ নেতা অং সান সু চি’সহ সকল রাজনৈতিক নেতাদের আটক করা হয়। এরপর থেকে দেশটির নাগরিকরা অভ্যুত্থান বিরোধী আন্দোলন শুরু করে। আর এই আন্দোলনকে দমন করার জন্য গুলি চালায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। এই আন্দোলনে এখন পর্যন্ত ৪৩ শিশুসহ ৬০০ জনের অধিক মানুষ নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে মানবাধিকার সংস্থাগুলো।-সারাবাংলা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •