ইমাম খাইর, সিবিএন:
কক্সবাজার শহরের প্রবশেদ্বার লিংকরোড থেকে একজন অস্ত্রধারী মাদক কারবারীসহ দুইজনকে আটক করেছে র‌্যাব।

তারা হলেন- কক্সবাজার সদরের ঝিলংজা মুহুরিপাড়ার মো. আবদুল্লাহর ছেলে মেহেদী হাসান বাবু (১৭) ও রামুর দক্ষিণ মিঠাছড়ি কাইম্যারঘোনা এলাকার আবদুল করিমের ছেলে মোঃ তারেকুল ইসলাম (১৯)।

বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে অভিযান চালানো হয়।

এ সময় একটি দেশীয় অস্ত্র, দুই রাউন্ড তাজা কার্তুজ ও চার হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে বলে দাবি র‌্যাবের।

র‌্যাব-১৫ এর সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার মো. আবু সালাম চৌধুরী বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে কক্সবাজার নিউজ ডটকম (সিবিএন)কে জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব জানতে পারে যে, কতিপয় মাদক কারবারী লিংকরোড মেরিন সিটি কমপ্লেক্সের সামনে ইয়াবা ক্রয়-বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে। এরপর র‌্যাবের একটি দল অভিযানে পৌঁছালে উপস্থিতি টের পেয়ে ০৮/১০ জন সংঘবদ্ধ অস্ত্রধারী মাদক কারবারীরা র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ করে গুলিবর্ষণ শুরু করে। তখন আভিযানিক দলের সদস্যগন সরকারী সম্পত্তি এবং তাদের জানমালের আত্মরক্ষার লক্ষ্যে পাল্টা গুলি করলে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় মেহেদী হাসান বাবু ও তার সহযোগী মোঃ তারেকুল ইসলামকে আটক করা হয়।

এ সময় তাদের নিকট থেকে ১ টি দেশীয় অস্ত্র, ২ রাউন্ড তাজা কার্তুজ ও চার হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।

মো. আবু সালাম চৌধুরী আরো জানান, গুলিবিদ্ধ মাদক কারবারী মেহেদী হাসান বাবুকে কালবিলম্ব না করে অতিদ্রুত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে কর্তব্যরত চিকিৎসকের পরামর্শে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণের ব্যবস্থা করে।

ঘটনার বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন বলে জানিয়েছেন র‌্যাবের এই মিডিয়া কর্মকর্তা।

এদিকে, গুলিবিদ্ধ মেহেদী ইয়াবা ব্যবসায়ী নয়, সে স্কুল ছাত্র বলে পরিবারের দাবি।

বৃহস্পতিবার প্রাথমিক চিকিৎসা চলাকালীন কক্সবাজার সদর হাসপাতাল চত্বরে তার স্বজনরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে। এ সময় উপস্থিত সাংবাদিকদের তারা জানায়, মেহেদী ইলিয়াস মিয়া চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্র। পারিবারিক অভাবের কারণে পড়ালেখার পাশাপাশি সে রং মিস্ত্রী হিসেবে কাজ করে। তাকে পরিকল্পিতভাবে ফাঁসানো হয়েছে। ঘটনার সঠিক তদন্ত দাবি করেছে স্বজনেরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •