ইমাম খাইর, সিবিএন:
ফেসবুকে মিথ্যা, বিভ্রান্তিকর ও উস্কানিমূলক তথ্য ছড়ানো ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন কক্সবাজারের পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান।

তিনি বলেন, সম্প্রতি মহেশখালী থানার ওসির বক্তব্য বলে কিছু ফেসবুক আইডিতে মিথ্যা তথ্য ছড়ানো হয়েছে। এরকম কয়েকটি আইডি আমরা শনাক্ত করেছি। তাদের সঠিক তথ্য যাচাই বছাই করা হচ্ছে। বিভ্রান্তি ছড়ানোর কাজে একটি চক্র জড়িত। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) সন্ধ্যায় পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সাম্প্রতিক সময়ের নানা বিষয়ে সম্মেলনে এসব কথা তুলে ধরেন এসপি মো. হাসানুজ্জামান।

তিনি বলেন, আমরা জেলা পুলিশ খুবই সতর্কতা সঙ্গে কাজ করছি। ফেসবুকে বিভ্রান্তি ছড়ানো ও অপবাদের কারণে ইতোমধ্যে চকরিয়ায় একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। হেফাজত ইস্যুতে মহেশখালীতে তিনটি ও টেকনাফে একটি মামলা হয়েছে। এসব মামলায় আসামিদের মধ্যেও যদি কেউ নিরপরাধ হয়ে থাকে তা তদন্তে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পুলিশ সুপার বলেন, পুলিশ জনগণের জন্য কাজ করে। পুলিশের কোন সদস্যও যদি অপরাধে জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া যায়, তাহলে তাকে ছাড় দেওয়া হবে না।

তিনি বলেন, কোন অভিযোগ হলে এটি কি ব্যক্তিগত স্বার্থ, নাকি সমষ্টিগত স্বার্থ, নাকি এলাকার স্বার্থ তা আমাদের যাচাই করে দেখতে হবে। তারপর আইনি ব্যবস্থা।

এসপি বলেন, কোন স্বার্থের প্রেক্ষিত ঘটনা ঘটলো তা যাচাই বাছাই করার আমাদের অবকাশ আছে।

সাংবাদিক নামধারী কিছু ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে ধরেন পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান। এরকম কয়েজকনের নামও বলেন তিনি।

সাম্প্রতিককালে ফেসবুককে অপব্যবহার করা হচ্ছে  উল্লেখ করে পুলিশ সুপার বলেছেন, বিভিন্ন ব্যক্তি ও পুলিশ সদস্যের নোমে বিকৃত তথ্য উপস্থাপনন করা হচ্ছে। এতে মানুষ কিন্তু বিভ্রান্ত হচ্ছে। আমি মনে করি, এসব বিভ্রান্তি দূর করার জন্য গণমাধ্যম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। এখনো পালন করে যাচ্ছে।

বিভিন্ন থানা, অফিসার ইনচার্জ কিংবা পুলিশের নাম ব্যবহার করে বিকৃতভাবে তথ্য উপস্থাপন করা হচ্ছে। এতে আমাদের বাহিনীর সুনাম ক্ষুন্ণ হচ্ছে। সাধারণ জনগণের মনে বিভ্রান্তি তৈরী হচ্ছে। এটি দূর করা দরকার। আপনাদের মিডিয়ার মাধ্যমে বিষয়টি তুলে ধরেন।

সাংবাদিকদের সহযোগিতা কামনা করে মো. হাসানুজ্জামান বলেন, সেবার মানসিকতা নিয়ে আমরা কাজ করছি। আপনারা আমাদের সহায়ক শক্তি। সঠিক তথ্যগুলো আপনারা তুলে ধরছেন। আমাদের কোন সদস্যও অন্যায়ে জড়িত থাকলে আমরা বিন্দুমাত্র ছাড় দিইনি। আপনারা দেখেছেন। প্রমাণ পেয়েছেন। আমরা যারা আপনাদের নিরাপত্তার জন্য দিনরাত কাজ করে যাচ্ছি, আমাদেরকে পৃষ্টপোষকতা করা, সঠিক তথ্য দিয়ে হেল্প করা, আমাদের ভাল কাজগুলো তুলে ধরার দায়িত্ব আপনাদের। আমাদের নিয়ে কেউ যদি বিকৃত তথ্য উপস্থাপন করে সেটাও তুলে ধরবেন আপনারা- এটি আমাদের প্রত্যাশা।

সঠিক তথ্য ও সংবাদগুলো তুলে ধরে জনমনের বিভ্রান্তি দূরীকরণে সাংবাদিকদের সহযোগিতা প্রত্যাশা করেছেন এসপি মো. হাসানুজ্জামান।

সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম, সদর থানার ওসি শেখ মুনীর উল গীয়াসসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •