সিবিএন ডেস্ক:
পাহাড় কাটার অভিযোগে ‘জালালাবাদ তালিমুল কুরআন মাদ্রাসা’ নামে একটি কওমি মাদ্রাসাকে ৭৮ লাখ ৭ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর। একই সাথে কর্তন করা পাহাড়কে আগামী তিন মাসের মধ্যে পূর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সোমবার (৫ এপ্রিল) অধিদফতরের পরিচালক রুবিনা ফেরদৌস স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ জরিমানার বিষয়টি জানানো হয়।

পরিবেশ অধিদফতরের চট্টগ্রাম মহানগর কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মিয়া মাহমুদুল হক জানান, বায়েজিদ থানার জালালাবাদ এলাকায় পাহাড়ের ওপর তালিমুল কুরআন মাদ্রাসা নির্মাণের সময় পাহাড় কাটার অভিযোগ উঠে কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। তার বিরুদ্ধে জালালাবাদ আরেফিন নগরে চারটি স্থানে সর্বমোট এক লাখ ৫৬ হাজার ১৫০ ঘনফুট পাহাড় কাটার প্রমাণ পেয়েছে পরিবেশ অধিদপ্তর। অভিযুক্ত মাদ্রাসার পরিচালক হাফেজ মো. তৈয়বকে একাধিকবার শুনানিতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তিনি কখনও শুনানিতে হাজির হননি। ফলে পরিবেশ সংরক্ষণের স্বার্থে বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষণ আইন, ১৯৯৫ (সংশোধিত ২০১০) এর ধারা ৭ অনুযায়ী প্রতিবেশগত ক্ষতিসাধনের দায়ে এনভায়রনমেন্টাল ড্যামেজ অ্যাসেসমেন্ট পদ্ধতিতে ৭৮ লাখ ৭ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, আগামী ১৫ এপ্রিলের মধ্যে জরিমানার টাকা পরিশোধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি যেসব পাহাড় কাটা হয়েছে সেগুলো আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে অভিযুক্তকে তিন মাসের সময় দেওয়া হয়েছে। অন্যথায় অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জালালাবাদ তালীমুল কুরআন মাদ্রাসায় হেফজখানা ও নুরানী বিভাগ রয়েছে। মাদ্রাসাটিতে প্রায় ২৫০ জন শিক্ষার্থী পড়ালেখা করছে। -সিভয়েস।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •