সিবিএন ডেস্ক: মার্কেট খুলে দেওয়ার দাবিতে আজ সোমবারও (৫ এপ্রিল) বিক্ষোভ করছেন নিউ মার্কেট এলাকার ব্যবসায়ীরা। সোমবার সকাল থেকেই ব্যবসায়ী এবং কর্মচারীরা নিউ মার্কেট এলাকায় জড়ো হতে থাকেন। এ সময় তারা মিছিল নিয়ে আশপাশের এলাকা প্রদক্ষিণ করে। চন্দ্রিমা সুপার মার্কেট, নিউ মার্কেট, গাউছিয়া, নীলক্ষেত নূর মেনশনসহ বেশকিছু মার্কেটের ব্যবসায়ী ও কর্মচারীরা রাস্তায় অবস্থান নেন।

তাদের দাবি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে ব্যবসা পরিচালনা করতে চায় তারা। লকডাউনের মধ্যেও মার্কেট খুলে দেওয়ার দাবি তাদের। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তারা ব্যবসা পরিচালনা করবেন‌। করোনা সংক্রমণের জন্য গত বছর লকডাউন থাকায় যে ক্ষতি হয়েছে সেই ক্ষতি এখনও পুষিয়ে ওঠা সম্ভব হয়নি। এজন্য রমজানকে কেন্দ্র করে মার্কেট খুলে দেওয়ার দাবি জানান তারা।

বন্ধ নিউ মার্কেটবন্ধ নিউ মার্কেট

ব্যবসায়ী নেতারা বলেন, লকডাউন কার্যকর হলে পুরোদমে তা কার্যকর করতে হবে। কিছু কিছু জায়গা খুলে দিলে এতে লকডাউন কার্যকর হবে না। কিছু কিছু জায়গায় যদি শিথিল করা হয় তাহলে আমাদের কেউ ব্যবসা চালাতে সুযোগ করে দিতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৪-৫ ঘণ্টার জন্য মার্কেট খুলা রাখার দাবি করেন তারা।

ব্যবসায়ীদের বিক্ষোভব্যবসায়ীদের বিক্ষোভ

রমনা জোনের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার আরএম ফয়জুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী লকডাউন কার্যকর করা হয়েছে। ব্যবসায়ীদের এ বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে হচ্ছে। এজন্য সাত দিন লকডাউন কার্যকর করতে তাদের সহায়তা চাওয়া হয়েছে। এই সাতদিন সফলভাবে লকডাউন কার্যকর হলে সংক্রমণের হার কমানো সম্ভব হবে এ বিষয়টিও তাদেরকে বলা হয়েছে। আমরা আশা করছি তারা এ বিষয়টি বুঝতে পেরে অবস্থান কর্মসূচির কিংবা বিক্ষোভ কর্মসূচি বন্ধ করে তারা যে যার মতো বাসায় চলে যাবে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গে কথা বলে তাদেরকে বোঝানোর চেষ্টা করেন। যেকোনও ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সকাল থেকে মোতায়েন করা হয় বিপুল পরিমাণ পুলিশ সদস্য।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •