আবুল কালাম, চট্টগ্রাম :

বন্দর নগরীর পাহাড়তলী থানাধীন কাজির দিঘীর আলামতারা পুকুরপাড় বড়ুয়া কলোনির এক নাম্বার রুম থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় এক নারীর মৃত দেহ উদ্ধার করেছে পাহাড়তলী থানা পুলিশ।

শনিবার(৩ এপ্রিল) সকালের দিকে কাজির দিঘীর আলামতারা পুকুরপাড় বড়ুয়া কলোনিতে এই ঘটনা ঘটে।

মৃত নারীর নাম  কুলসুমা আক্তার (২৮)। তাকে বাসার সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করেছেন পাহাড়তলী থানা পুলিশ।

কুলসুমা লক্ষ্মীপুর জেলার টার্মিনাল শাকারী পাড়া এলাকার জাকির হোসেনের মেয়ে। মেয়েটির স্বামীর বাড়ি একই জেলায় লক্ষ্মীপুর পাশবর্তী ইউনিয়নে।
স্বামী শরিফ পেশায় পিকআপভ্যানের ড্রাইভার বলে জানা যায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কলোনির কেয়ারটেকার মোহাম্মদ জাফর বলেন, আমি সকালের দিকে খবর পেয়ে কলোনিতে আসি। এসে দেখি লাশটি খাটের উপর পড়ে আছে তখন আমি পুলিশকে খবর দেই।
পার্শ্ববর্তী ভাড়াটিয়া ভাষ্যমতে জানা যায়, শুক্রবার রাতে স্বামী স্ত্রীর মাঝে কথা কাটাকাটি হয়। এ কথা কাটাকাটির জের ধরে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটতে পারে। নিহত কুলসুমার খালাতো বোন ব্যাচেলর হিসেবে এই বাসায় থাকতেন খালাতো বোন পেশায় একজন গার্মেন্টস  কর্মী।
এই দম্পতির রিয়ান নামের সাত বছরের একটি ছেলে আছে।
ঘন্টাখানেক পর ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন বাড়িওয়ালা রঞ্জন কুমার বড়ুয়া। সংবাদকর্মীরা ভাড়াটিয়ার তথ্য ফর্ম থানায় জমা দিয়েছে কিনা এবং অন্যান্য তথ্য নিতে গেলে বাড়িওয়ালা রঞ্জন কুমার বড়ুয়া সংবাদকর্মীদের উপর চড়াও হন এবং অসৎ আচরন করেন । তিনি আরো বলেন আপনাদের সাথে কোন কথা নেই। যা কথা পুলিশের সাথে হবে ,পুলিশের কাছে যান।

ঘটনাস্থলে আসেন পাহাড়তলী জোন সহকারি উপ-পুলিশ কমিশনার (এসি) মোঃ আরিফ হোসেন এবং পাহাড়তলী থানার অফিসার ইনচার্জ হাসান ইমাম।

ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে পাহাড়তলী জোন সহকারী উপ পুলিশ কমিশনার (এসি) মোঃ আরিফ হোসেন বলেন,আমাদেরকে ফোন করা হলে আমরা ঘটনাস্থলে আসি এবং প্রাথমিকভাবে ধারণা করি এটি আত্মহত্যা,প্রাথমিক তদন্ত শেষে লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে মর্গে পাঠাই।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •