অনলাইন ডেস্ক : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, আগামীকাল সোমবার (৫ এপ্রিল) থেকে গণপরিবহন বন্ধ থাকবে।

তিনি বলেন, তবে পণ্যপরিবহন, জরুরি সেবা, জ্বালানি, ঔষধ, পচনশীল, ত্রাণবাহী পরিবহন, সংবাদপত্র, গার্মেন্টস সামগ্রী এ নিষেধাজ্ঞার আওতামুক্ত থাকবে।

আজ রোববার (৪ এপ্রিল) রাজধানীতে সাংবাদিকদের এ কথা জানান ওবায়দুল কাদের।

এর আগে গতকাল জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এক ভিডিও বার্তায় সোমবার থেকে ৭ দিনের জন্য লকডাউন দেওয়া হবে বলে জানান। একই সঙ্গে আরো জানান, লকডাউন চলাকালীন শিল্প কারখানা খোলা থাকবে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো ১০-দিনের সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয় ২০২০ সালের ২৬ মার্চ। পরবর্তী সময়ে ৭ দফায় এ ছুটি বাড়িয়ে ৩০ই মে পর্যন্ত বহাল রাখা হয়েছিল। সরকারের পক্ষ থেকে এই সময়টিকে আনুষ্ঠানিকভাবে ‘লকডাউন’ বলা হয়নি, বরং ‘সাধারণ ছুটি’ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছিল। দেশজুড়ে ‘লকডাউন’ কার্যকর করার আগ পর্যন্ত আক্রান্ত বাড়ি, জেলা-উপজেলা, পাড়া-মহল্লা ইত্যাদি লকডাউন করা হয়েছিল।

গুগলের কমিউনিটি মবিলিটি রিপোর্ট অনুযায়ী বলা হয়, লকডাউন কার্যকরে প্রতিবেশী ভারতসহ বিশ্বের বেশকিছু দেশের তুলনায় পিছিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের পার্ক ও বিনোদন কেন্দ্রে তখনও জনসমাগম দেখা গেছে। যদিও আগের তুলনায় এসব স্থানে মানুষের চলাচল কমেছে মাত্র ২৬ শতাংশ।

-আরটিভি

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •