মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু:
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার সীমান্তবর্তী ঘুমধুম ইউনিয়নের ৩০হাজার মানুষের প্রাণের দাবীর পূর্ণতা দিতে দেশের সর্ব পূর্ব দক্ষিণে অবস্থিত বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তবর্তী ঘুমধুম কলেজ’র অস্থায়ী কার্যালয়ে অফিসিয়াল কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে।
শনিবার (৩ মার্চ) সাড়ে ১২টায় ঘুমধুম উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন অস্থায়ী কার্যালয়ে ঘুমধুম কলেজের অফিসিয়াল কার্যক্রম শুরু করেন ১১ বিজিবি’র অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল শাহ আব্দুল আজিজ আহমেদ।
এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঘুমধুম কলেজ বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মোঃ শফিউল্লাহ।
উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আলহাজ্ব রাজামিয়া, কলেজ বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য সচিব অধ্যক্ষ মোঃ ফরিদ, অধ্যাপক কবি সিরাজ, ঘুমধুম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খাইরুল বশর,ঈদগড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হামিদুল হক, দক্ষিণ ঘুমধুম মিসকাতুন্নবী (সঃ) দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাওলানা সেলিম উল্লাহ,আওয়ামীলীগ নেতা ও কলেজ বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য ডাঃ মোহাম্মদ শাহজাহান, মাষ্টার শাহজাহান, এম.ছৈয়দ আলম,নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি বদর উল্লাহ বিদু, সাংবাদিক শ.ম.গফুর, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান পুলিশ মোহাম্মদ শাহজাহান, ছাত্রনেতা ইব্রাহীম খলিল, ঘুমধুম ক্রীড়া পরিষদ সভাপতি ছৈয়দুর রহমান হীরা সহ বিভিন্ন পেশাজীবি বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যপক মোঃ শফিউল্লাহ বলেন উপজেলার সীমান্তবর্তী ঘুমধুমে কলেজ প্রতিষ্ঠা হওয়া এই অঞ্চলের জন্য একটি মাইলফলক। এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন এবং সুশীল সমাজের সদিচ্ছার প্রতিফলন ঘটাতে পেরে অামি নিজেকে ধন্য মনে করছি। এসময় তিনি আরো বলেন, পার্বত্য বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উসৈশিং এমপির হাত ধরে দ্রুত এ কলেজ পূর্ণতা পাবে বলে তিনি আশা ব্যক্ত করেন।
উদ্বোধক লেঃ কর্ণেল শাহ আব্দুল আজীজ আহমেদ কলেজ বাস্তবায়ন কমিটির সকলকে স্বাগত জানান এবং সব-সময় পাশে থেকে সহযোগিতা করবে বলে আশ্বস্ত করেন। এর আগে কলেজ বাস্তবায়ন কমিটির সকল সদস্যরা নবনির্মিত কলেজের জায়গা পরিদর্শন করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •