সিবিএন ডেস্ক :

সারাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ ফের নতুন রেকর্ড গড়েছে। আগের দিন যেখানে সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছিল সর্বোচ্চ ৫ হাজার ৩৫৮ জনের শরীরে, সেখানে গত ২৪ ঘণ্টায় এর পরিমাণ আরও বেড়ে হয়েছে ৬ হাজার ৪৬৯।

এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণ নিয়ে মৃত্যু হয়েছে ৫৯ জনের, যা দেশের ইতিহাসের সর্বোচ্চ। গত ৩০ জুন দেশে একদিনে সর্বোচ্চ ৬৪ জন মারা গিয়েছিলেন।

বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানার সই করা কোভিড-১৯ সংক্রান্ত নিয়মিত বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে আরটি-পিসিআর, জিন এক্সপার্ট ও র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন মিলিয়ে মোট ২২৬টি ল্যাবে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এদিন মোট নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ২৮ হাজার ১৯১টি, নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ২৮ হাজার ১৯৮টি। এ নিয়ে দেশে মোট ৪৬ লাখ ৯৮ হাজার ৭৭৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হলো। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৩৫ লাখ ৫২ হাজার ৭৮৮টি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১১ লাখ ৪৫ হাজার ৯৮৬টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় যেসব নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে, এতে ৬ হাজার ৪৬৯ জনের মধ্যে করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হলো ৬ লাখ ১৭ হাজার ৭৬৪টি। গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ২২ দশমিক ৯৪ শতাংশ। গত আট মাসের মধ্যে ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার এত বেশি ছিল না। সার্বিকভাবে নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ১৫ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় যে ৫৯ জন মারা গেছেন, এ নিয়ে দেশে ৯ হাজার ১০৫ জন মারা গেলেন করোনা সংক্রমণ নিয়ে। এখন পর্যন্ত শনাক্তের বিপরীতে মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৭ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত ৫৯ জনের মধ্যে ৩৫ জন পুরুষ, ২৪ জন নারী। তাদের ৫৭ জনই মারা গেছেন হাসপাতালে, দুই জন বাড়িতে।

গত ২৪ ঘণ্টায় যে ৫৯ জনের মৃত্যু হয়েছে তাদের মধ্যে ৩০ জন ষাটোর্ধ্ব। এছাড়া ১৩ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ ব্ছর, ১১ জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছর। এছাড়া ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সী চার জন ও ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সী একজন মারা গেছেন। এই ৫৯ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগের রয়েছেন ৪০ জন, পাঁচ জন করে রয়েছেন চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের। এছাড়া খুলনা বিভাগে চার জন, রংপুর ও রাজশাহী বিভাগে দুই জন করে এবং বরিশাল বিভাগের একজন করোনা সংক্রমণ নিয়ে মারা গেছেন।

এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণ থেকে ২ হাজার ৫৩৯ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এ নিয়ে দেশে করোনা সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়ে উঠলেন ৫ লাখ ৪৪ হাজার ৯৩৮ জন। সংক্রমণ বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৮ দশমিক ২১ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়েছে, বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত দেশে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নেওয়ার জন্য ৬৮ লাখ ৩৪ হাজার ৩৪৬ জন নিবন্ধন করেছেন। আর বুধবার (৩১ মার্চ) পর্যন্ত দেশে ভ্যাকসিন নিয়েছেন ৫৩ লাখ ৭০ লাখ ৪৩১ জন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •