মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু :
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি ১১ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন (বিজিবি’র) ধারাবাহিক অভিযানে আবারও ৯ হাজার ৭ শত ৩৯ পিচ ইয়াবাসহ এক ব্যক্তিকে আটক করেছে। তার নাম আমান উল্লাহ (৩০)। সে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার সদর ইউনিয়নের ফুলতলী গ্রামের মৃত উলা মিয়ার ছেলে।

বিজিবি সূত্র জানান, বুধবার (৩১ মার্চ) ভোরে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে নাইক্ষ্যংছড়ি বিজিবি’র অধিনস্থ ফুলতলী বিওপি’র দক্ষিণ পাশ থেকে ক্যাপ্টেন খালেদ মাহমুদের নেতৃত্বে বিজিবি জোয়ানরা ইয়াবাসহ তাকে আটক করতে সক্ষম হন। উদ্ধার হওয়া ইয়াবার আনুমানিক মূল্য ২৯ লাখ ১৯ হাজার টাকা। এদিকে স্থানীয় একটি সূত্রে জানান ফুলতলীর পাশ্বর্বতী রামুর কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের হাজির পাড়া গ্রামের আবুল হাশেমের ছেলে বেলাল উদ্দীন, মহলজ্জামানের ছেলে নুরুল আলম,এমদাত মিয়ার ছেলে নুরুল আমিন প্রকাশ বান্ডাইয়া, ডাক্টার কাটা গ্রামের আলী মদনের ছেলে শাহ আলম, সহ ১০ সদস্যের একটি শক্তিশালী সেন্ডিকেট এ মরণ নেশা ইয়াবা মিয়ানমার সীমান্ত দিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থান দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে পাচার করে আসছে। সম্প্রতি বিজিবি নুরুকে ৯৭৮৫ পিচ ও আমান উল্লাহ কে ৯৭৩০ ইয়াবাসহ আটক করায় বাকি সদস্যরা গা ঢাকা দিয়েছে বলে জানা গেছে। তবে বিজিবি’র এ অভিযানকে এলাকাবাসী সাধুবাদ জানান।

বিজিবি সূত্রে জানা যায়, গতকাল উদ্ধার হওয়া ইয়াবা ট্যাবলেটসহ আটক আমান উল্লাহকে নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় হস্তান্তর করে সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা দেওয়া হয়। ১১ বিজিবি অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল শাহ আব্দুল আজিজ আহমেদ বলেন, সীমান্ত এলাকা দিয়ে অবৈধ অস্ত্র, কাঠ,মাদকদ্রব্য পাচার, অন্যান্য যে কোন ধরনের অবৈধ পণ্য সামগ্রী পাচার এবং সন্ত্রাসী কার্যক্রম রোধে বিজিবি’র ধারাবাহিক অভিযান অব্যাহত আছে এবং থাকবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •