বেনাপোল প্রতিনিধি:
যশোরের বেনাপোল থেকে এক ব্যবসায়ীকে বাড়িতে নিয়ে নির্যাতন চালায় সন্ত্রাসী আব্দুর রব। যুবককে উদ্ধারের ঘটনায় এক পুলিশ কর্মকর্তাকে জীবনাশের হুমকি দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় পুলিশ কর্মকর্তা তার পরিবার ও জীবন নিয়ে শঙ্কায় আছেন।

হুমকীর শিকার পুলিশ কর্মকর্তা যশোরের কেশবপুরের থানার উপপরিদর্শক(এসআই) পিন্টু লাল দাস। হুমকীদাতা সন্ত্রাসী যশোরের বেনাপোল পোর্টথানার রঘুনাথপুর গ্রামের মৃত: সিরাজুল ইসলামের ছেলে আব্দুর রব।

এস আই পিন্টু লাল দাস জানায়, গত ২৬শে মার্চ বেনাপোলে ব্যবসায়ীক কাজে আসেন কেশবপুরের লিয়াকতের ছেলে রেজাউল। এসময় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে রেজাউলকে তুলে নিয়ে যায় রঘুনাথপুর গ্রামের আব্দুর রব। খবর পেয়ে রেজাউলের বোন ২৭শে মার্চ পুলিশে অভিযোগ দায়ের করে। পরে বেনাপোল বাহাদুরপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মুফিজুর রহমানের সহযোগীতা নিয়ে রেজাউলকে আব্দুর রবের বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় আব্দুর রব আমাকে ফোন দিয়ে হুমকি-ধামকি দেয়। আমি আমার পরিবার নিয়ে শঙ্কায় আছি। বিষয়টি উধ্বর্তন কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে।

রেজাউলের বোন খাদিজা বলেন, অপহরণকারী আব্দুর রব ২৬শে মার্চ বিকেলে তার ভাইকে তার বাড়িতে তুলে নিয়ে যায়। পরের দিন ২৭শে মার্চ রব আমার কাছে ফোন দিয়ে আড়াই লাখ টাকা দাবী করে। আমি দ্রুত কেশবপুর থানায় গিয়ে পুলিশকে ঘটনাটি জানায়। অপহরনের পর তার ভাইয়ের উপর অমানবিক নির্যাতন করা হয়। চিকিৎসার জন্য তাকে কেশবপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রেজাউল ইসলাম জানান, বাড়িতে নিয়ে আমার উপর নির্যাতন চালায় রব। টানা দু’দিন মারধোর করে। আমার বাড়িতে ফোন দিয়ে টাকা দাবী করে। টাকা না দিলে আমার কিডনি বিক্রি করে দিবে বলেও হুমকি দেয় সে।