রাশেদুল ইসলাম মাহমুদ:
সমাজকল্যাণ মন্ত্রনালয়াধীন সমাজসেবা অধিদফতর পরিচালিত কক্সবাজার শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রের উদ্যোগে যথাযোগ্য মর্যাদায় বর্ণাঢ্য আয়োজনে মহান স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী ও জাতীয় দিবস উদযাপন করা হয়েছে৷

শুক্রবার (২৬ মার্চ) সুযোর্দয়ের সাথে সাথে
মহান স্বাধীনতা দিবসে বালক ও বালিকা উভয় শাখায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।

সকাল হতে নানা কর্মসূচি পালনের ধারাবাহিকতায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন,শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল,চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা ও মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক গল্প বলা প্রতিযোগিতা, মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক চলচিত্র প্রদর্শনী, আলোচনাসভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, পুরষ্কার বিতরণ, বালক ও বালিকা শিশুদের আবাসন ভবন আলোকসজ্জা এবং নিবাসী শিশুদের মাঝে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হয়।

উল্লেখ্য, সকাল ৯.০০ টায় শহরের দক্ষিণ রুমালিয়ার ছড়াস্থ শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রের প্রাঙ্গনে শিশুদের নির্মিত শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পনের মধ্যেদিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ১৯৭১ সালে শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

সকাল ১০.০০ টায় কেন্দ্র মিলনায়তনে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ও মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক গল্পবলা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এতে কেন্দ্রের নিবাসী শিশুরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করে।

সকাল ১১.০০ টায় কক্সবাজার সবুজবাগ জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মোঃ ইকবাল হোসাইন এর পরিচালনায় মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

কেন্দ্রের উপপ্রকল্প পরিচালক জেসমিন আকতার এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার জেলার জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক মোঃ ফরিদুল আলম এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার জেলার জেলা কৃষি বিপণন কর্মকর্তা মোঃ শাহজাহান আলী ও জেলা সমাজসেবা
কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোঃ আবুল কাসেম।

এডুকেটর সুজন কুমার সূত্রধর এর
সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তারা ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী ও জাতীয়
দিবসথ২০২১ এর গুরুত্ব তুলে ধরেন। অতঃপর শিশুদের পরিবেশিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপস্থিত সকলেই বিমুগ্ধ চিত্তে উপভোগ করেন।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শেষে উপস্থিত
অতিথিবৃন্দ প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। অতঃপর প্রধান অতিথি মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক চলচিত্র প্রদর্শনীর শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন। এসময় শিশুরা বিমুগ্ধ চিত্তে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক চলচিত্র উপভোগ করে। এছাড়াও দিবসটি উপলক্ষে শিশুদের মাঝে বিশেষ
উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •