সিবিএন ডেস্ক:
চীনের পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য জিনজিয়াংয়ের পরিস্থিতি নিয়ে তথ্য ছড়ানোয় যুক্তরাজ্যের কিছু প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে বেইজিং। শুক্রবার চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এই ঘোষণা দিয়েছে।

নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়েছে যুক্তরাজ্যের চারটি প্রতিষ্ঠান ও ৯ জন ব্যক্তি। এসব ব্যক্তি ও তাদের পরিবারের সদস্যরা চীনা অঞ্চলে প্রবেশ করতে পারবেন না আর তাদের সঙ্গে যোগাযোগ ও বাণিজ্য করতে পারবে না চীনের কোনো ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরার প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

যুক্তরাজ্যসহ পশ্চিমা দেশগুলো দীর্ঘদিন থেকে অভিযোগ করে আসছে জিনজিয়াংয়ে উইঘুর ও অন্য মুসলমানদের ওপর দমন-পীড়ন চালাচ্ছে চীন। তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করে বেইজিংয়ের দাবি উগ্রবাদ মোকাবিলায় সেখানে ভোকেশনাল ট্রেনিং সেন্টার পরিচালনা করা হচ্ছে। বেইজিংয়ের দাবি উড়িয়ে দিয়ে ইতিমধ্যে বেশ কিছু চীনা প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্রসহ কয়েকটি পশ্চিমা দেশ।

শুক্রবার চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়, ‘জাতীয় সার্বভৌমত্ব, নিরাপত্তা এবং উন্নয়ন স্বার্থ রক্ষায় চীন কঠোরভাবে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। ব্রিটিশ পক্ষকে আর বেশি ভুল পথে এগিয়ে যাওয়ার বিষয়ে সতর্ক করেছে চীন। অন্যথায় যথাযথ প্রতিক্রিয়া দেখাতে বাধ্য হবে চীন।’

চীনা নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়াদের মধ্যে রয়েছেন যুক্তরাজ্যের ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির আইনপ্রণেতা টম টাগেনধাট। তিনি ব্রিটিশ পার্লামেন্টের পররাষ্ট্র কমিটির চেয়ারম্যান। এছাড়া রয়েছেন কনজারভেটিভ পার্টির সাবেক নেতা লেইন ডানকান স্মিথ এবং প্রখ্যাত মানবাধিকার আইনজীবী হেলেনা কেনেডি। সূত্র: আলজাজিরা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •